BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিমান সফরে জারি আরও একগুচ্ছ বিধিনিষেধ, জেনে নিন দমদম বিমানবন্দরের নিয়মাবলি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 12, 2020 7:26 pm|    Updated: September 12, 2020 7:30 pm

An Images

কলহার মুখোপাধ্যায়, বিধাননগর: আনলক পর্ব শুরু হওয়ার পর থেকে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে বিমান পরিষেবা। বাড়ছে যাত্রী সংখ্যা। ঠিক এই সময়েই কোভিড-১৯’এর সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা। তা থেকে রক্ষা পেতে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত আরেকদফা নির্দেশিকা জারি করেছে এয়ারপোর্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (Airport Authority of India)। দেশের প্রতিটি বিমানবন্দরের জন্য আলাদা আলাদা নিয়ম জারি হয়েছে। কলকাতা বিমানবন্দরের ক্ষেত্রে কী কী নিয়ম মেনে যাত্রীদের সফর করতে হবে, জেনে নিন।

নির্দেশিকায় বলা হয়েছে –

  • অন্য কোথাও থেকে দমদম বিমানবন্দরে নামা প্রত্যেক যাত্রীকে ১৪ দিনের জন্য সতর্ক থাকতে হবে। নিজের শারীরিক অবস্থা বুঝে পদক্ষেপ করতে হবে। দু’সপ্তাহের মধ্যে করোনার (Coronavirus) উপসর্গ দেখা দিলে স্বাস্থ্যকর্মী কিংবা রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করাটা বাধ্যতামূলক।
  • পশ্চিমবঙ্গ সরকারের হেল্পলাইন নম্বর নির্দেশিকাতে উল্লেখ করেছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ – ১৮০০-৩১৩-৪৪৪-২২২, ০৩৩-২৩৪১-২৬০০, ২৩৫৭-৩৬৩৬/১০৮৩/১০৮৫। করোনা উপসর্গ দেখা দিলে এই নম্বরগুলিতে ফোন করে স্বাস্থ্য দপ্তরের সঙ্গে বিমানযাত্রীদের যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।
  • বিমানবন্দরে থাকা রাজ্য সরকার নিযুক্ত স্বাস্থ্যকর্মীর হাতে ‘সেলফ ডিক্লারেশন ফরম’ জমা দিতে হবে।
  • নির্দেশিকা অনুযায়ী, বাইরে থেকে আসা কোনও বিমানযাত্রীর শরীরে যদি করোনা উপসর্গ দেখা দেয়, তাহলে তাঁকে কাছাকাছি কোনও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হবে কোভিড-১৯ পরীক্ষা করানোর জন্য। করোনা ধরা পড়লে যে কোনও একটি হাসপাতালে তাঁকে ভরতি করানো হবে।
  • উপসর্গহীন কিংবা কম উপসর্গযুক্ত যাত্রীদের হোম আইসোলেশন (Isolation) বা ইনস্টিটিউশনাল আইসোলেশন রাখা হবে।

[আরও পড়ুন: লকডাউন প্রত্যাহারেও চলল না ট্রেন, টিকিট কেটে স্টেশনে পৌঁছে চূড়ান্ত হয়রানির শিকার যাত্রীরা]

একইসঙ্গে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ বিমানে ওঠার আগে যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষায়ও জোর দিচ্ছে।

  • বসানো হয়েছে থার্মাল স্ক্যানার। মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে বলা হচ্ছে।
  • হাঁচি, কাশির সময় সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হচ্ছে যাত্রীদের।

দেহের তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকলে এবং যাত্রীদের দেহে করোনাজনিত কোনও উপসর্গ না থাকলে, তবেই তাঁকে বিমানে ওঠার অনুমতি দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে নির্দেশিকায়।

দমদম বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রতিদিন একাধিকবার বিমানবন্দর জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি যাত্রীদের পরিছন্নতা বজায় রাখতে কিছুটা দূরত্বেই রাখা থাকছে স্যানিটাইজার, সাবান। সেসব ব্যবহার করে সুরক্ষিত থাকতে পারেন যাত্রীরা। করোনা সংক্রান্ত যাবতীয় নিয়ম বিমানবন্দরের বাইরে ও ভিতরে লেখা থাকছে, যাতে তা দেখেও যাত্রীরা সব জানতে পারেন।

[আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়ায় দলবিরোধী বক্তব্য নয়, বিজেপি রাজ্য নেতাদের কড়া নির্দেশ কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের]

রবিবার NEET পরীক্ষার জন্য শেষ মুহূর্তে শনিবার লকডাউন তুলে নেওয়া হয়েছে রাজ্যে। তা সত্ত্বেও এদিন দমদমে বিমান চলাচল ছিল হাতেগোনা। এয়ার ইন্ডিয়ার তিনটিমাত্র বিমান দমদম থেকে উড়েছে। একটি বেঙ্গালুরু, একটি হায়দরাবাদ ও অন্যটি ভুবনেশ্বরগামী। সকাল দশটা থেকে বিকেল পাঁচটা অবধি মাত্র তিনটি বিমান চলাচলের ঘটনা সাম্প্রতিক অতীতে ঘটেনি বলে বিমানবন্দর সূত্রে জানা গিয়েছে। রবিবার থেকে বিমান চলাচল স্বাভাবিক ছন্দে ফিরে আসবে বলে আশাবাদী দমদম বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement