৮ মাঘ  ১৪২৬  বুধবার ২২ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৮ মাঘ  ১৪২৬  বুধবার ২২ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে আগেই। এবার ১৫০ টাকার গণ্ডিও ছোঁয়ার পথে পিঁয়াজ। হু হু করে বাড়ছে পিঁয়াজের দাম। এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষকে কিছুটা স্বস্তি দিতে রাজ্য সরকারের সুফল বাংলা স্টলে কম দামে পিঁয়াজ বিক্রি চলছে। কিন্তু তাতেও শান্তি নেই গৃহস্থের। কাঁকুড়গাছিতে ওই স্টল থেকে লুট অন্তত ২০ কেজি পিঁয়াজ। যার ফলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়ানোই সার। মিলল না বহুমূল্যবান পিঁয়াজ। বিরক্ত সাধারণ মানুষ। এদিকে, দাম ক্রমশ বাড়তে থাকায় পিঁয়াজ বিক্রি বন্ধের ভাবনা খুচরো ব্যবসায়ীদের।

কারও বয়স ৩০ আবার কারও বা বয়স পেরিয়েছে আশির গণ্ডি। তা সত্ত্বেও সকাল থেকেই সুফল বাংলা স্টলের সামনেই লম্বা লাইন ক্রেতাদের। লক্ষ্য একটাই মাত্র ৫৯ টাকা কেজি দরে পিঁয়াজ কেনা। কিন্তু সেখানেও দেখা দিল বিপত্তি। সুফল বাংলা স্টল থেকেও মিলল না পিঁয়াজ। কারণ, বৃহস্পতিবার সকালে কাঁকুড়গাছির সুফল বাংলা স্টল থেকে লুট হয়ে যায় প্রায় ২০ কেজি পিঁয়াজ। তার জেরে স্বাভাবিকভাবেই পিঁয়াজ পাচ্ছেন না লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা আমজনতা। মাথায় হাত সুফল বাংলা স্টলের কর্মীদেরও। কীভাবে বিক্ষোভ সামাল দেবেন তাঁরা, তা বুঝতে পারছেন না কিছুতেই।

কাঁকুড়গাছির মতো একই ছবি পোস্তা বাজারেও। বৃহস্পতিবার সকালে মহারাষ্ট্রের নাসিক থেকে পিঁয়াজ পৌঁছয়নি এই বাজারে। তার পরিবর্তে রাজস্থান এবং দক্ষিণ ভারত থেকে মোট ৬ ট্রাক পিঁয়াজ পোস্তা বাজারে এসেছে। পিঁয়াজ ১৪০ টাকা কেজি দরে বিকোচ্ছে এই বাজারে। এখানেও পিঁয়াজ কিনতে গিয়ে কপালের ভাঁজ চওড়া হচ্ছে গৃহস্থের। পিঁয়াজের দাম যেন কাঁদিয়ে ছাড়ছে মধ্যবিত্তকে।

[আরও পড়ুন: ‘ছুটি পেলে এটা হত না’, খুন করে আত্মঘাতী ITBP জওয়ান ছেলের হয়ে সাফাই মায়ের]

এদিকে, পিঁয়াজের দাম ক্রমাগত বাড়তে থাকায় সমস্যায় পড়েছেন খুচরো ব্যবসায়ীরাও। দাম বাড়ায় তাঁদের পিঁয়াজ মজুত করতেও খরচ হচ্ছে অনেক বেশি। আবার তার উপর প্রয়োজনের তুলনায় পিঁয়াজ কেনার পরিমাণও কমিয়ে দিয়েছেন গৃহস্থেরা। তাই বিক্রি হচ্ছে খুবই কম। এছাড়াও দাম কমবেশি নিয়ে ক্রেতাদের সঙ্গে ঝগড়াঝাটি লেগেই রয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই অশান্তি মেটাতে পিঁয়াজ বিক্রি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বেশ কয়েকজন খুচরো ব্যবসায়ী।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং