BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

হাই কোর্টে PAC মামলা চলাকালীনই বিধানসভায় স্পিকারের ঘরে Mukul Roy! তুঙ্গে জল্পনা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 10, 2021 8:58 pm|    Updated: August 10, 2021 9:50 pm

PAC chairman Mukul Roy visits West Bengal Assembly | Sangbad Pratidin

স্টাফ রিপোর্টার: PAC’র বৈঠকে যোগ না দিলেও অন্য একটি কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে মঙ্গলবার বিধানসভায় গেলেন কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্রের বিধায়ক মুকুল রায়। সূত্রের খবর, এদিন বিধানসভার স্পিকারের ঘরেও বেশ কিছুক্ষণ ছিলেন পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান। যদিও, স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় মুকুলের সঙ্গে তাঁর দেখা হয়নি বলেই দাবি করেছেন।

আগামী ১৭ আগস্ট মুকুলের (Mukul Roy) দলত্যাগ সংক্রান্ত মামলার শুনানি হওয়ার কথা স্পিকারের কাছে। তার আগে ১৩ আগস্ট শুক্রবার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির (PAC) দ্বিতীয় বৈঠক। ওই দিনের বৈঠকে যোগ দিতে আসতে পারেন মুকুল। এমনটাই দাবি সূত্রের। এর আগে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দিল্লি সফরে থাকায় প্রথম বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি তিনি। এদিকে, রাজ্য বিধানসভার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান পদে মুকুল রায়কে বসানোর সিদ্ধান্তকে কেন্দ্র করে দায়ের হওয়া মামলায় বিধানসভার অধ্যক্ষের কাছে হলফনামা তলব করল কলকাতা হাইকোর্ট। ১২ আগস্টের মধ্যে অধ্যক্ষকে হলফনামা আকারে তাঁর বক্তব্য জানাতে নির্দেশ দিয়েছে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল ও বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ।

[আরও পড়ুন: আদালতগুলিতে কেন বছরের পর বছর ঝুলে মামলা? রাজ্যের হলফনামা চাইল কলকাতা হাই কোর্ট]

মঙ্গলবার অধ্যক্ষের হয়ে এই মামলায় সওয়াল করেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। তিনি বলেন, এ নিয়ে তাঁর আরও অনেক কিছু বলার রয়েছে। তাই হলফনামা জমা দেওয়ার জন্য দু’সপ্তাহ সময় দেওয়া হোক। কিন্তু ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, ১২ অগস্টের মধ্যেই হলফনামা জমা দিতে হবে। মামলাকারী তথা কল্যাণী বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক অম্বিকা রায়ের দাবি ছিল, সংসদীয় এবং পরিষদীয় প্রথা অনুযায়ী পিএসি চেয়ারম্যানের (PAC Chairman) পদ প্রধান বিরোধী দলের প্রাপ্য। মুকুল রায় প্রকাশ্যে দলত্যাগ করে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছেন। তাছাড়া ওই পদের জন্য তিনি বিজেপি মনোনীত প্রার্থীও ছিলেন না। তা সত্ত্বেও প্রথা অগ্রাহ্য করে যে ভাবে মুকুলকে চেয়ারম্যান করা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ বেআইনি। এদিন তাঁর আইনজীবী কে এস নরসিংহ বলেন, “সংসদীয় ব্যবস্থায় স্পিকার এই ধরনের ক্ষমতা প্রয়োগ করতে পারেন কি না, খতিয়ে দেখার প্রয়োজন রয়েছে। এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তাই বুধবারই মামলার শুনানি হোক।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে