৩ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৭ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo ফিরে দেখা ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৭ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্য ও রাজ্যপালের বেনজির সংঘাতে যুক্ত হল নতুন অধ্যায়। বিধানসভায় গিয়ে কাউকে না পেয়ে ‘অপমানিত’ রাজ্যপালকে পালটা তোপ দাগলেন পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। জগদীপ ধনকড়ের উদ্দেশে কটাক্ষ করেন, আপনি যত খুশি ঘুরতে পারেন। শুধু রাজ্যের সময় আর টাকা নষ্ট করবেন না।


এদিন সাংবাদিক সম্মেলন করে পরিষদীয় মন্ত্রী তথা তৃণমূল মহাসচিব বলেন, “বুধবার কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলেন, বৃহস্পতিবার বিধানসভাতে চলে এলেন। যদি, সরকারের কোনও ভুল থেকেই থাকে তাহলে প্রশ্ন কেন তুলছেন। সরকারকে সরাসরি বলতে পারেন তো। সব জায়গায় যাচ্ছেন, ঘুরছেন, ছবি তুলছেন, ওঁর চিড়িয়াখানায় যাওয়া উচিত। কে বারণ করেছে? যত খুশি দেখুন, ঘুরুন। শুধু সরকারের টাকা নষ্ট করবেন না।” উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই রাজভবনের খরচ নিয়ে রাজ্যপালকে খোঁচা দিয়েছেন পার্থবাবু। এদিন আরও একবার তিনি বলেন, রাজভবনের খরচ আগের তুলনায় বেড়ে গিয়েছে। এদিন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও নাম না করে রাজ্যপালকে তোপ দেগেছেন। ইনফোকম ২০১৯-এর মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেন, “আমাদের এখানে সমান্তরাল প্রশাসন চালানোর চেষ্টা চলছে।” রাজ্যের আরেক মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ও ধনকড়কে কটাক্ষ করেছেন। তাঁর দাবি, এমন আচরণ করতে আর কোনও রাজ্যপালকে কখনও দেখেননি তিনি।

[আরও পড়ুন: জনসভায় যাওয়ার পথে পুলিশি বাধার মুখে মুকুল, গার্ডেনরিচে আটকানো হল গাড়ি]


উল্লেখ্য, রাজ্যপাল হয়ে এরাজ্যে আসার পর থেকেই মমতা প্রশাসনের সঙ্গে নানা ইস্যুতে ঝামেলায় জড়িয়েছেন ধনকড়। একাধিক ইস্যুতে রাজ্যের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ করেছেন তিনি। একই সঙ্গে রাজ্যের তরফে তাঁকে বারবার অপমান করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন রাজ্যপাল। বৃহস্পতিবার আরও একবার একই অভিযোগ করেছেন ধনকড়। এদিন, বিধানসভায় গিয়ে অপমানিত হয়েছেন বলে অভিযোগ তাঁরা। বিল বিতর্কের মাঝেই বৃহস্পতিবার সকালে বিধানসভায় যান তিনি। তবে তিন নম্বর দরজা তালাবন্ধ থাকায় ওই দরজা দিয়ে ভিতরে ঢুকতে পারেননি ধনকড়। তাঁকে ঢুকতে হয় ঘুরপথে। তাতেই ক্ষুব্ধ রাজ্যপাল।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং