BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভিনরাজ্যে আটকে পুলিশকর্তা থেকে শিক্ষিকা, টাকা দিয়েও মিলছে না পরিষেবা

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 28, 2020 10:14 pm|    Updated: March 28, 2020 10:14 pm

An Images

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: লকডাউনের জেরে কলকাতায় আটকে ভিন রাজ্য-সহ বিভিন্ন জেলার শ্রমিক, দিনমজুরেরা। লকডাউনের ফলে রাস্তায় বেরিয়ে কেউ খোঁজ করছেন গাড়ির, কেউ অর্থ না থাকায় চাইছেন প্রশাসনের সাহায্য। কারোর বা মাথায় হাত পড়েছে বাড়ি ফেরার কথা ভেবে।

ঝাড়খণ্ডের জসিডির বাসিন্দা রাজেশ কুমার হাওড়ার দাশনগরের এক কারাখানায় কাজ করতেন। গত রবিবার থেকে হাওড়াতেই আটকে তিনি। সোমবার থেকে রাজ্যে লকডাউন ও ও বুধাবার থেকে দেশজুড়ে লকডাউন জারি হওয়ায় বাড়ি ফিরতে পারছেন না রাজেশ কুমার। ঝাড়খণ্ডের কিছু বাসিন্দারা আগেই গাড়ি ভাড়া করে চলে গেলেও রাজ্যেই আটকে এই যুবক। ঝাড়গ্রামে বাড়ি হাওড়ার কারখানায় কাজ করেতে আসা শ্রমিক অজয় বেরা, কুশ বেরার। তাদেরও একই দশা। রবিবার থেকে তারাও আটকে এই হাওড়াতেই। একই চিত্র পোস্তায় পিঁয়াজের আড়তে কাজ করতে আসা লক্ষণপ্রসাদ গুপ্তার। বাড়ি ফিরতে না পেরে উত্তরপ্রদেশের বাসিয়ার বাসিন্দা আড়তেই পড়ে রয়েছেন সপ্তাহের শুরু থেকে। রাজ্যে আটকে বিহারের এক বাসিন্দা, পেশায় আবার তিনি রাজমিস্ত্রী।

আবার চিকিৎসা করাতে এসেও কলকাতায় আটকে পড়েছেন ভিন রাজ্যের বহু মানুষ। রাজ্য পুলিশের প্রাক্তন জিএসপি নিজাম হোসেন সরকার ২২ ফেব্রুয়ারি মুম্বইয়ে গিয়ে আটকে পড়েন। মুম্বিয়ের একটি হাসপাতালে ২৩ মার্চ তার অস্ত্রোপচার হওয়ার কথা ছিল। সেই সময়েই লকডাউন জারি হওয়ায় এখনও মুম্বইয়ের মাহিম থানা এলাকায় আটকে তিনি। তবে শুধু ভিন রাজ্যের বাসিন্দারা এই রাজ্যে বা কলকাতায় নয়, এই রাজ্যের মানুষেরাও ভিন রাজ্যে গিয়ে আটকে রয়েছেন। ভেলোরে চিকিৎসা করাতে গিয়ে আটকে হাওড়ার এক শিক্ষিকা। অনেক কষ্টে একটি লজ ভাড়া নিয়ে ভেলোরে রয়েছেন এই হাওড়ার শিক্ষিকা ঋতুপর্ণা ত্রিপাঠী। তবে তাদের উদ্ধার করে নিজেদের রাজ্যে পাঠানোর মতো এখনও কোনও সুষ্ঠু ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়নি।

[আরও পড়ুন: করোনা যুদ্ধে জয়ী হতে নয়া তহবিল গঠনের ঘোষণা মোদির]

কলকাতা-সহ অন্য জেলাগুলিতে ভিন রাজ্যের আটকে থাকা শ্রমিকদের নিজেদের রাজ্যে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে সরকারের তরফ থেকে। তবে অন্য রাজ্যে আটকে থাকা পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দারা এখনও রাজ্যে ফেরার সুযোগই পাচ্ছেন না। অতিরিক্ত টাকা দিয়ে দিন গুজরানের জন্য তাদের থাকতে হচ্ছে নিম্নমানের জায়গায়। প্রচুর টাকা খরচ হয়ে গেলও পাচ্ছেন না মনপসন্দ খাবার। তাই রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ভিন রাজ্যে আটকে পড়া মানুষদের খেয়াল রাখতে অনুরোধ করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: এবার তেলেঙ্গানায় মৃত এক বৃদ্ধ, মৃত্যুর পর পাওয়া গেল আক্রান্তের রিপোর্ট]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement