২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

শুভময় মণ্ডল: না জানিয়ে তাঁর নিরাপত্তা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে৷ এবার সরাসরি কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মাকে ই-মেল করলেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ চিঠিতে প্রাণহানির আশঙ্কা প্রকাশ করে নিরাপত্তা ফেরানোর আরজি জানালেন বেহালা পূর্বের বিধায়ক৷ কাঠগড়ায় তুললেন স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়কে৷

[ আরও পড়ুন: লাইনে জল জমে বিঘ্নিত ট্রেন চলাচল, পাম্প চালিয়ে সমাধানের চেষ্টায় রেল ]

অনুজ শর্মাকে পাঠানো ই-মেলে একদা মুখ্যমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ শোভন বলেন, ‘‘১৯৯৫ থেকে তাঁর সঙ্গে সরকারি নিরাপত্তারক্ষীরা ছিল৷ কলকাতা কর্পোরেশনের মেয়র ও রাজ্য মন্ত্রিসভার গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হিসাবে জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পেতাম আমি৷ কিন্তু পরে কোনও অজ্ঞাত কারণে আমার নিরাপত্তা কমানো হয়৷ ওয়াই ক্যাটাগরির নিরাপত্তা দেওয়া হয় আমাকে৷ ২০১৮-র ২২ নভেম্বর মন্ত্রী ও মেয়র পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরও, আমার নিরাপত্তা কমানো হয়নি৷ কারণ, আমার প্রাণহানির আশঙ্কা সম্পর্কে অবগত ছিল রাজ্য সরকার ও পুলিশ-প্রশাসন৷ আমার স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় যে, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে, তাও জানেন সকলে৷ কিন্তু ১৭ আগস্ট রাত ১১টা ১৫মিনিট নাগাদ আপনার অফিসের নির্দেশে, আমার সমস্ত নিরাপত্তা তুলে নেওয়া হয়েছে৷ আমার মনে হয়, বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় আমার বিরুদ্ধে এমন প্রতিহিংসা পরায়ণ মনোভাব দেখাচ্ছে রাজ্য সরকার৷ যদিও প্রশাসনের উচিত সকলকে এক নজরে দেখা৷’’ এরপরই কলকাতার পুলিশ কমিশনারের কাছে নিরাপত্তা ফেরতের আরজি জানান বেহালা পূর্বের বিধায়ক৷ সাফ জানান, রবিবার সন্ধে ৭টায় বিধায়ক ও কাউন্সিলর হিসাবে কলকাতায় ফিরছেন তিনি৷ অনুরোধ করেন, ওই সময় থেকেই তাঁর জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করার৷

[ আরও পড়ুন: সাংগঠনিক নির্বাচনে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বরদাস্ত নয়, কড়া বার্তা বঙ্গ বিজেপির ]

জানা গিয়েছে, মন্ত্রী ও মেয়র থাকার সময় সুন্দরবন থেকে শুরু করে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় এমন অনেক সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়, যার কারণে স্বার্থান্বেষী মহলের অনেকের বাড়াভাতে ছাই পড়ে। কলকাতায় জলা ভরাট বন্ধ করে প্রমোটরদের রক্তচক্ষুর শিকার হয়েছিলেন তিনি। জমি মাফিয়াদের অনেক পরিকল্পনা ভেস্তে দিয়েছিলেন কলকাতার এক সময়ের মেয়র। বস্তুত সেই কারণে গোয়েন্দা রিপোর্টের ভিত্তিতে জেড প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তা দিয়েছিল নবান্ন৷ মন্ত্রিত্ব ও মেয়র পদ থেকে ইস্তফা দিলেও দীর্ঘদিন তাঁর ওয়াই ক্যাটাগরির নিরাপত্তা ছিল। তবে দু’দিন আগে দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই তাঁর সমস্ত নিরাপত্তা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। বিষয়টি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকেও জানিয়ে দিয়েছে নবান্ন। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা চেয়ে অমিত শাহের কাছে আরজি জানিয়েছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ সম্ভবত কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পেতে চলেছেন তিনিও৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং