২৮ আশ্বিন  ১৪২৬  বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লোকসভা ভোটের সময় থেকে লাগাতার অশান্তি। বৃহস্পতিবার সকালেও মুড়ি-মুড়কির পড়েছে এলাকায়, গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গিয়েছেন তিনজন। ভাটপাড়া ও লাগোয়া এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করল প্রশাসন। এডিজি(আইনশৃঙ্খলা) সঞ্জয় সিং-কে অতিরিক্ত দায়িত্ব দিয়ে পাঠানো হচ্ছে বারাকপুর কমিশনারেটে। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ভাটপাড়ায় গিয়েছেন রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্র।

[আরও পড়ুন: ‘দুষ্কৃতীদের রেয়াত নয়’, সাম্প্রতিক ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রীকে খোলা চিঠি মুসলিম নাগরিকদের]

লোকসভা ভোট ও উপনির্বাচনের সময়ে অশান্তি হয়েছে, ভোটের পরেও বোমা-গুলির লড়াই চলছে। বৃহস্পতিবার  নতুন থানার উদ্বোধন করতে ভাটপাড়ায় যাওয়ার কথা ছিল ডিজি-সহ রাজ্য পুলিশের পদস্থ আধিকারিকদের। কিন্তু তার আগে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় গোটা এলাকা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ ভাটপাড়া মোড়ে শ্রমিকদের বসতিতে আচমকাই বোমাবাজি শুরু হয়। এরপর বেলা যত গড়িয়েছে, বোমাবাজিও ততই বেড়েছে। সকালে প্রায় ঘণ্টা দেড়েক মুড়ি-মুড়কির মতো বোমা পড়েছে। সঙ্গে চলেছে গুলিও। এখনও পর্যন্ত যা খবর, ভাটপাড়ায় গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন তিনজন। আহত কমপক্ষে পাঁচজন। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে যে, শূন্যে প্রায় ১৫ থেকে ২০ রাউন্ড গুলি চালায় পুলিশ। ফাটানো হয় কাঁদানে গ্যাসের শেলও। এলাকায় নামানো হয় ব়্যাফ ও কমব্যাট ফোর্স।

বৃহস্পতিবার ভাটপাড়ার পরিস্থিতি নিয়ে নবান্নে মুখ্য সচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব ও ডিজি-সহ পুলিশের শীর্ষ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকের পর স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ভাটপাড়ায় অশান্তির নেপথ্যে রয়েছে বহিরাগতরা। সক্রিয় হয়ে উঠেছে স্থানীয় সমাজ বিরোধীরা। কড়া হাতে পরিস্থিতি মোকাবিলা করছে সরকার। এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।’ এদিন ভাটপাড়ায় একটি নতুন থানার উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অশান্তির কারণে উদ্বোধন স্থগিত হয়ে যায়। তবে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন না হলেও, বৃহস্পতিবার থেকে থানার চালু হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র সচিব।

ভাটপাড়ার ঘটনার নিয়ে শাসক-বিরোধী তরজাও চরমে। পুলিশের গুলিতে প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ করেছেন বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ভাটপাড়ায় যাচ্ছে বিজেপি কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে রিপোর্ট দেবেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। থানা ঘেরাও কর্মসূচিও ঘোষণা করেছে গেরুয়া শিবির।

[আরও পড়ুন: দিলীপ ঘোষ সংসদে, বিধানসভায় নতুন দলনেতা নির্বাচন করল বিজেপি

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং