৫ ভাদ্র  ১৪২৬  শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৫ ভাদ্র  ১৪২৬  শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

কলহার মুখোপাধ্যায়, বিধাননগর: সব্যসাচী অতীত৷ বিধাননগর পুরসভার আগামী মেয়র হিসাবে যখন তাপস চট্টোপাধ্যায় ও কৃষ্ণা চক্রবর্তীর নাম নিয়ে জোর জল্পনা চলছে, তখনই চিত্রনাট্যে প্রবেশ ঘটল এক নয়া চরিত্রের৷ তিনি আর কেউ নন, রাজ্যের দমকল প্রতিমন্ত্রী সুজিত বসু৷ অসমর্থিত সূত্রে খবর, বিধাননগর পুরসভার আগামী মেয়র হতে পারেন বিধাননগরের বিধায়ক৷ কানাঘুষোয় শোনা যাচ্ছে তাপস চট্টোপাধ্যায় ও কৃষ্ণা চক্রবর্তীর রেষারেষি থামাতে এবার নাকি সুজিত বসুকে মেয়রের পদে বসানোর প্রস্তুতি শুরু করেছে শাসকদল৷ যদিও এই বিষয়ে তৃণমূলের তরফে এখনও কোনও সদুত্তর পাওয়া যায়নি৷ 

[ আরও পড়ুন: ‘বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ছুতমার্গ নেই’, এবার তৃণমূলকে জোট বার্তা সোমেন মিত্র’র]

প্রসঙ্গত, এই জল্পনার পালে হাওয়া তুলেছে শুক্রবারের আরও একটি ঘটনা৷ সূত্রের খবর, দক্ষিণ দমদমের ভোটার সুজিত বসু এদিন বিধাননগরের ভোটার হতে চেয়ে ফর্ম জমা দিয়েছেন৷ এই মর্মে বিধাননগরের এসডিও-র কাছে একটি আবেদন করেছেন তিনি ও তাঁর স্ত্রী৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পুরআইন অনুযায়ী, পুরসভার মেয়র হতে গেলে, সেই পুর এলাকার ভোটার হতেই হয়৷ সেদিক থেকে দেখলে সুজিত বসুর বিধাননগরের মেয়র হওয়ার ক্ষেত্রে প্রধান অন্তরায় ছিল, তিনি বিধাননগরের ভোটার নন৷ রাজনৈতিক মহলের মতে, সেই সংকট মোচনের ব্যবস্থা করে মেয়র হওয়ার পথ সুগম করতে চাইছেন দমকল মন্ত্রী৷

জানা গিয়েছে, যদি সুজিত বসু বিধাননগরের পরবর্তী মেয়র হন, তবে আরও একটি বিষয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করবেন তিনি৷ সংশোধিত পুরআইন অনুযায়ী, কাউন্সিলর না হয়েও, এখন কেউ মেয়র হতে পারেন৷ সেক্ষেত্রে ছ’মাসের মধ্যে কোনও একটি ওয়ার্ড থেকে জিতে আসতে হবে ওই ব্যক্তিকে৷ রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, যদি সুজিত বসু বিধাননগরের আগামী মেয়র হন, তবে তিনিই হবেন এ রাজ্যের প্রথম মেয়র, যাঁর ক্ষেত্রে এই আইনটি প্রথমবার কার্যকর হবে৷

এখানেই শেষ নয়, সুজিত বসুকে পরবর্তী মেয়র করতে চেয়ে আরও একটা ব্যাখ্যা দিয়েছে তৃণমূলের একাংশ৷ তাঁদের মতে, পদত্যাগী মেয়র সব্যসাচী দত্তকে নিয়ে যেদিন থেকে বিতর্ক তৈরি হয়েছে, তখন থেকেই পরবর্তী মেয়র হিসাবে নাম ভাসছে তাপস চট্টোপাধ্যায় ও কৃষ্ণা চক্রবর্তীর৷ ফলে বিধাননগরের ডেপুটি-মেয়র ও চেয়ারম্যানের মধ্যে জোর লড়াই চলছে৷ এই পরিস্থিতিতে তাপস ও কৃষ্ণা, দু’জনেরই কাছের মানুষ সুজিতকে মেয়র পদে বসিয়ে, সেই লড়াইয়ের অবসান ঘটাতে চাইছে দল৷ সেজন্যই অনেকে মনে করছেন, এই জল্পনা এখনই উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না৷

[ আরও পড়ুন: রোজভ্যালিকাণ্ডে ৬ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ, ইডিকে তদন্তে সহযোগিতার আশ্বাস প্রসেনজিতের ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং