১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

অচলাবস্থার দায় নিয়ে পদত্যাগ এনআরএসের সুপার এবং প্রিন্সিপালের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 13, 2019 9:19 pm|    Updated: June 13, 2019 9:55 pm

Super and Principal resign at NRS taking responsibility of the situation

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজের ঘটনার জেরে রাজ্যজুড়ে অচলাবস্থার জের৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিজেদের দায়িত্বপালনে ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদ ছাড়লেন কলেজের সুপার সৌরভ চট্টোপাধ্যায় এবং প্রিন্সিপ্যাল শৈবাল মুখোপাধ্যায়৷ যা এই মুহূর্তে নিঃসন্দেহে একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা৷ স্বাস্থ্যভবনে ইমেল করে তাঁরা ইতিমধ্যেই ইস্তফাপত্র পাঠিয়েছেন দুই শীর্ষকর্তা৷

[আরও পড়ুন: ‘আমাদের নিরাপদ আশ্রয়ে আসুন’, ফের ডাক্তারদের সমর্থনে পোস্ট ফিরহাদ-কন্যার]

শুধু স্বাস্থ্যক্ষেত্রই নয়৷ রাজ্যের সামগ্রিক পরিস্থিতি সাপেক্ষে এনআরএসে সুপার এবং প্রিন্সিপালের এই ইস্তফার অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ, যা প্রশাসনের কপালে চিন্তার ভাঁজ আরও বাড়িয়ে তুলল৷ দুপুরেই মুখ্যমন্ত্রী এসএসকেএমে গিয়ে কর্মবিরতি প্রত্যাহারের চরম হুঁশিয়ারি দেওয়ার পর থেকে গণইস্তফার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন আন্দোলনরত চিকিৎসকরা৷ সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ৬৮ জন সিনিয়র ডাক্তার সঙ্গে সঙ্গেই ইস্তফাপত্র পেশ করেছিলেন৷ তা গৃহীত না হলেও, এমন সাহসী পদক্ষেপ নিঃসন্দেহে আন্দোলনের শক্তি বাড়িয়েছে৷ তা বোঝা গেল রাতেই৷ গণইস্তফার ভিড়ে গা না ভাসালেও পদ ছেড়ে দিলেন ঘটনাস্থল এনআরএস-এর সুপার, প্রিন্সিপ্যাল৷ শুধু কারণটা পৃথক৷ সূত্রের খবর, নিজেদের ইস্তফাপত্রে তাঁরা স্পষ্টই উল্লেখ করেছেন, প্রায় চারদিন ধরে চিকিৎসকদের কর্মবিরতি, রোগীদের যথাযথ পরিষেবা দিতে না পারা–এসবের দায় তাঁদেরই৷ পরিস্থিতির অচলাবস্থা কাটাতে তাঁরা ব্যর্থ হয়েছেন৷ আর সেই ব্যর্থতার জন্যই নিজেদের পদে থাকাটা তাঁরা আর শোভনীয় মনে করছেন না৷ সেই কারণেই ইস্তফা৷

[আরও পড়ুন: এনআরএস কাণ্ডে হস্তক্ষেপ রাজ্যপালের, চিকিৎসকদের কর্মবিরতি তুলে নেওয়ার আরজি]

রাজ্যের স্বাস্থ্য তথা মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারিই আসলে আন্দোলন দমনে অনুকূল না হয়ে যে প্রতিকূল হয়েছে, সেই ছবি একেবারেই স্পষ্ট৷ এই পরিণতির বোধহয় পাননি স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীই৷ আর তাই এই চরম পরিস্থিতি সামলাতে তাঁকে যথেষ্ট বেগ পেতে হবে৷ এবং সেই রাস্তা খুঁজে বের করা এই মুহূর্তে বেশ কঠিন হয়ে দাঁড়াল বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে