BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

অবস্থা অত্যন্ত বিপজ্জনক, টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলার সুপারিশ বিশেষজ্ঞের

Published by: Sayani Sen |    Posted: October 9, 2019 2:57 pm|    Updated: October 9, 2019 2:57 pm

Tala bridge may be destroy for safety of common people

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলার পরামর্শ দিলেন মুম্বইয়ের বিশেষজ্ঞ ভি কে রায়না। পঞ্চমীর দিন টালা ব্রিজ পরিদর্শন করেন। ওইদিনই পূর্ত দপ্তরকে টালার বর্তমান পরিস্থিতি সংক্রান্ত প্রাথমিক মৌখিক রিপোর্ট দিয়েছিলেন মুম্বইয়ের বিশেষজ্ঞ। ব্রিজ ভেঙে ফেলার সুপারিশও দিয়েছেন তিনি। ইতিমধ্যেই এ বিষয়ে একপ্রস্থ আলোচনাও হয়েছে। আগামী শনিবার নবান্নে বৈঠকের পরই নির্ধারিত হবে টালা ব্রিজের ভবিষ্যৎ।

[আরও পড়ুন: বরুণদেবের ভ্রুকুটি উপেক্ষা করে সল্টলেকে পুড়ল ৬০ ফুটের রাবণ]

টালা ব্রিজের মাধ্যমে উত্তর শহরতলির সঙ্গে সহজে যোগাযোগ করা যায়। তাই প্রতিদিন গাড়ির চাপ থাকে যথেষ্ট বেশি। এদিকে, অবস্থা অনুযায়ী টালা ব্রিজ ভেঙে পড়তে পারে যেকোনও সময়ে। এমনই আশঙ্কার কথা শুনিয়েছিল রাইটস। তাই সেই মতো পুজোর সময়েও টালা ব্রিজে বন্ধ ছিল যানচলাচল। যাতায়াতকারীদের জন্য বিকল্প রাস্তায় বাস চালানো হয়। তবে তাতে সামাল দেওয়া যায়নি ভিড়। পরিবর্তে যানজটের জেরে ভোগান্তির শিকার হতে হয় যাতায়াতকারীদের। পুজোর দিনকটায় যে ভোগান্তি আরও বেড়েছে হুজুগে বাঙালির, তা বলাই বাহুল্য।

[আরও পড়ুন: মাছবাজারে আচমকা হানা, বাজেয়াপ্ত খোকা ইলিশ যাবে বৃদ্ধাশ্রমে]

তবে পুজো মিটতে না মিটতেই টালা ব্রিজ নিয়ে ফের তৎপর প্রশাসন। টালা ব্রিজ নিয়ে বুধবার নবান্নে মুখ্যসচিবের কাছে চূড়ান্ত রিপোর্ট জমা দিলেন মুম্বইয়ের ব্রিজ বিশেষজ্ঞ ভি কে রায়না। তিনি ওই রিপোর্টে জানিয়েছেন, টালা ব্রিজ মেরামতি করে আর কোনও লাভ হবে না। কারণ ব্রিজের সাতটি জায়গার অবস্থা অত্যন্ত খারাপ। বিশেষত রেললাইনের উপরের অংশের পরিস্থিতি বিপজ্জনক। তাই যাতায়াতকারীদের নিরাপত্তার স্বার্থে টালা ব্রিজ পুরো ভেঙে ফেলাই ভাল। তবে এখনই এ বিষয়ে কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। আগামী শনিবার টালা ব্রিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে বৈঠকে বসবেন মুখ্যমন্ত্রী। উপস্থিত থাকবে সব পক্ষই। ব্রিজ থাকবে নাকি ভেঙে ফেলা হবে সে বিষয়ে ওই বৈঠকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে