৭ শ্রাবণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

কলহার মুখোপাধ্যায়: স্থানীয় এক বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়ে মার খেলেন এক যুবক। কাঠগড়ায় বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ। আক্রান্ত যুবক আবার তৃণমূল সমর্থক বলে জানা গিয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় তিনি ভরতি বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালে। যদিও এই ঘটনা নিয়ে মুখ খুলতে চায়নি পুলিশ। থানায় এখনও পর্যন্ত কোনও অভিযোগও দায়ের হয়নি বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: বলিউডে সুযোগ দেওয়ার নামে লক্ষাধিক টাকার জালিয়াতি, প্রতারিত দমদমের মহিলা]

আক্রান্ত যুবকের নাম রাজু দে। বাড়ি, বিধাননগর দক্ষিণ থানার দত্তাবাদে। পেশায় ওই যুবক ব্যবসায়ী। এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থক হিসেবে পরিচিত। রাজু দে-র পরিবারের অভিযোগ, দিন কয়েক আগে তাঁকে বেধড়ক মারধর করেন স্থানীয় এক বিজেপি নেতা। বৃহস্পতিবার বিধাননগর দক্ষিণ থানা অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন রাজু। পরিবারের লোকেদের দাবি, রাজু যখন অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন, তখন কোনও সমস্যা হয়নি। তাঁর অভিযোগ নেয় বিধাননগর দক্ষিণ থানা। অভিযোগ জানিয়ে থানা থেকে বাড়িতে চলেও এসেছিলেন রাজু। পরিবারের লোকেদের দাবি, বাড়ির ফেরার ঘণ্টা দুয়েক পর ফের রাজুকে বিধাননগর দক্ষিণ থানায় ডেকে পাঠায় পুলিশ। থানায় গেলে, তাঁকে বেধড়ক মারধর করেন আলি খান নামে এএসআই। খবর পেয়ে থানায় যান রাজুর পরিবারের লোকেরা। তাঁকে উদ্ধার করে ভরতি করা হয় বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালে। এখনও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই যুবক।

কিন্তু থানায় তো যে কারও বিরুদ্ধেই অভিযোগ জানানো যায়। অভিযোগ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয় পুলিশ। তাহলে এক্ষেত্রে অভিযোগ নেওয়ার পরেও কেন থানায় ডেকে অভিযোগকারী রাজু দে-কে মারধর করল পুলিশ? অভিযুক্ত বিজেপি নেতা বলেই কি আক্রান্ত হতে হল অভিযোগকারীকে? ঘটনাটি নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছে পুলিশ। ভয়ে মারধরের ঘটনায় আর পুলিশে অভিযোগ করার সাহস পাননি আক্রান্তের পরিবার। রীতিমতো আতঙ্কে ভুগছেন রাজু দে ও তাঁর পরিবারের লোকেরা।

[আরও পড়ুন: খুলছে বিমানবন্দরগামী রাস্তা, আজই শুরু উল্টোডাঙা উড়ালপুলের মেরামতির কাজ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং