১২ বৈশাখ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৬ এপ্রিল ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

দীপঙ্কর মণ্ডল: কৃষি, একশো দিনের কাজ-সহ বেশ কিছু পরিষেবায় গোটা দেশে বাংলা প্রথম। বাংলার আবারও দেশের সেরা৷ এবার রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। সোমবার দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে শংসাপত্র ও মেডেল তুলে দিলেন। দেশের অন্যতম প্রাচীন, ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন স্বীকৃতিতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

                                      [আরও পড়ুন: পরিবারে থেকেও মানসিকভাবে একা, গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা বৃদ্ধার]

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের মুকুটে এমন একটি পালক যোগ হওয়ায় গোটা প্রতিষ্ঠানে খুশির হাওয়া। আধিকারিক, কর্মী, শিক্ষক ও পড়ুয়ারা পরস্পরের মধ্যে মিষ্টি বিলি করেন। উপাচার্য সোনালি চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায় এ প্রসঙ্গে বলেন, “পঠনপাঠন ও গবেষণার কাজে আমরা এবার আরও বেশি করে এগিয়ে যেতে পারব। রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মিলিয়ে গোটা দেশে প্রথম হওয়া আমাদের লক্ষ্য।” প্রসঙ্গত, দেশের সব ধরনের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে র‌্যাঙ্কিংয়ে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ষষ্ঠ স্থান অধিকার করেছে।

                                        [ আরও পড়ুন:  স্পেশ্যাল ঝালমুড়ি থেকে মিহিদানা, পাটুলিতে পদ সাজিয়ে এল ‘ভোটের খাবার’]

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউশনাল র‌্যাঙ্কিং ফ্রেমওয়ার্ক (এনআইআরএফ)-এর তালিকা প্রত্যেক বছর প্রকাশিত হয়। সোমবার প্রকাশিত তালিকায় দেখা গিয়েছে, গোটা দেশে বিভিন্ন রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে প্রথম স্থানে নাম রয়েছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের। দেশের সমস্ত প্রতিষ্ঠান মিলিয়ে কলকাতা পঞ্চম স্থানে। রাজ্য থেকে আর একটি মাত্র বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পেয়েছে প্রথম দশে৷ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। যাদবপুর সব উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির মিলিত তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে ছিল। এবারও একই জায়গায় আছে। উল্লেখযোগ্যভাবে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় গত দু’বছরে কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও এবার অনেকটা এগিয়ে এসেছে। ২০১৭ সালে বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগে ১৬তম স্থানে ছিল কলকাতা। ২০১৮ সালে ছিল ১৪তম স্থানে। এবার অনেকটা উঠে এসে পঞ্চম স্থান  দখল করেছে। উপাচার্য সোনালি চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “আমাদের সবার মিলিত প্রয়াসে এই সাফল্য এসেছে। জাতীয় র‌্যাংকিংয়ে উপরের দিকে উঠে আসার ফলে আমরা এবার অনুদান আরো বেশি করে পাব।” কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সাফল্যের খবর পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়কে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে শুভেচ্ছা জানান।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং