BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  রবিবার ৯ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

দীর্ঘদিন ধরে সমাজ কল্যাণের পুরস্কার, আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেল ওয়েস্ট বেঙ্গল রেডিও ক্লাব

Published by: Paramita Paul |    Posted: December 9, 2019 4:23 pm|    Updated: December 9, 2019 8:54 pm

An Images

শুভময় মণ্ডল: ‘অ্যামেচার’-র রেডিওর দুনিয়ায় দেশের হয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক পুরস্কার- নিউজ মেকার অব দি ইয়ার জিতল ওয়েস্ট বেঙ্গল রেডিও ক্লাব। গত ২৬ বছর ধরে রেডিওর দুনিয়ায় একের পর এক প্রশংসনীয় কাজ করে চলেছে এই হ্যাম রেডিও। কখনও তাঁরা সমুদ্রে মাছ ধরতে যাওয়া মৎস্যজীবীদের তুফান সম্পর্কে আগেভাগে সতর্ক করেছেন। কখনও আবার দুর্যোগ কবলিত এলাকার মানুষের সঙ্গে প্রিয়জনদের যোগাযোগ করে দিয়েছেন তাঁরা। এবার তাঁদের সেই অবদানকে কুর্নিশ জানাল অ্যামেচার রেডিও নিউজলাইন। গত ১ ডিসেম্বর সংস্থার তরফে প্রদীপ সাহা এই পুরস্কার নিতে নিউইয়র্কে হাজির ছিলেন।

২৬ বছর আগে পথচলা শুরু করেছিল এই ওয়েস্ট বেঙ্গল রেডি্ও ক্লাব। দেশে আরও ২৮৫টি অ্যামেচার রেডিও থাকলেও প্রথমদিন থেকেই কাজের ধরণটা আলাদা ছিল ওয়েস্ট বেঙ্গল রেডিও ক্লাবের। তাঁরা একদিকে যেমন সমুদ্রে মাছ ধরতে যাওয়া মৎ্স্যজীবীদের জন্য কাজ করেছে। অন্যদিকে স্কুলে স্কুলে গিয়ে ছাত্রছাত্রীদের সোশ্যাল মিডিয়ার নেশা থেকে বের করে আনতেও কাজ করছে। পড়ুয়াদের শেখানো হচ্ছে হ্যাম রেডিওর ব্যবহার। পরববর্তী সময় এই রেডিও নিয়ে কাজ করার সুযোগ সম্পর্কেও অবহিত করা হচ্ছে তাঁদের।

[আরও পড়ুন : অগ্নিমূল্য শাক-সবজি, বাজারে গিয়ে সরেজমিনে নজরদারি মুখ্যমন্ত্রীর]

এই রেডিও ক্লাবের প্রেসিডেন্ট সুবীর দত্ত জানান, “ভূমিকম্প, ঘূর্ণিঝড়, বন্যা কবলিত এলাকায় সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি আমরা।প্রতিবছরই গঙ্গাসাগরে বহু মানুষ তাঁর পরিবার-পরিজনদের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তাঁদের পরিবারের সঙ্গে পুনর্মিলনেও গুরুত্ব ভূমিকা নিই আমরা।” সম্প্রতি, ফণী, বুলবুল, নেপালের ভূমিকম্পের সময়ও ওই সমস্ত এলাকায় গিয়ে কাজ করেছেন বলে জানান ক্লাবের সেক্রেটারি অম্বরীশ নাগ বিশ্বাস। তিনি আরও জানিয়েছে, “অর্থ-আধুনিক প্রযুক্তি-সর্বক্ষণের কর্মী-সহ একাধিক সমস্যা থাকা সত্বেও আমরা কাজ করে চলেছি।”

[আরও পড়ুন : হাসপাতালে পৌঁছনোর গ্রিন করিডর এবার অ্যাপেই, প্রথম দফায় চালু হচ্ছে কলকাতায়]

এবার তাঁদের সেই অনবদ্য কাজকে স্বীকৃতি দিল অ্যামেচার রেডিও নিউজলাইন। আন্তর্জাতিক স্তরে এ ধরণের পুরস্কার জিতে বেজায় খুশি রেডিও ক্লাবের সদস্যরা। এই পুরস্কার তাঁদের এগিয়ে যাওয়ার পথে আরও উৎসাহ দেবে বলে মনে করছেন সদস্যরা।            

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement