২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

কোন ইস্যুতে বাংলা দাপাবে বিজেপি? রাজ্য কমিটির বৈঠকে শুরু প্রস্তুতি

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: September 13, 2018 9:39 am|    Updated: September 13, 2018 9:39 am

Which issue is move on BJP in Bengal? Preparation start in the state committee meeting

রূপায়ন গঙ্গোপাধ্যায়: মানুষের মনে দাগ কাটবে এরকম ইস্যু নিয়েই লোকসভা নির্বাচনের আগে ময়দানে নামার প্রস্তুতি নিতে চলেছে বিজেপি। সংঘ পরিবারের বৈঠকে আন্দোলনের ইস্যু বাছাই করার পরামর্শ দিয়ে গিয়েছিল আরএসএসের শীর্ষ নেতৃত্ব৷ সেই মতো আগামী দিনে আন্দোলন কোন পথে এগোবে তা ঠিক করতেই শুরু হচ্ছে রাজ্য বিজেপির দু’দিনের বৈঠক। প্রথমদিন জেলা সভাপতি, পর্যবেক্ষক ও শাখা সংগঠনের নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করবেন বিজেপির কেন্দ্রীয় ও রাজ্য নেতৃত্ব৷

[পাঁচ ঘণ্টায় কলকাতা থেকে কুনমিং, বুলেট ট্রেন চালাতে আগ্রহী চিন]

শনিবার অর্থাৎ দ্বিতীয় দিনের বৈঠকে রাজ্য কমিটির সদস্যরাও থাকবেন। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার পাশাপাশি লোকসভা ভোটের আগে অনুপ্রবেশ ইস্যুকেও হাতিয়ার করতে চাইছে গেরুয়া শিবির। রাজ্য কমিটির বৈঠকে রাজনৈতিক প্রস্তাবেও এই বিষয়গুলি থাকছে। পুজোর আগেই কলকাতায় বড় মিছিল করে আন্দোলন জেলায় জেলায় ছড়িয়ে দেওয়ার প্রস্তুতি নিতে চলেছে রাজ্য নেতারা। সংগঠন নিয়ে পর্যালোচনার পাশাপাশি আগামী রণকৌশল নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে দু’দিনের বৈঠকে। ইতিমধ্যেই দলের কৃষক সংগঠন মাঠে নেমে পড়েছে। কৃষিক্ষেত্রে আট দফা দাবিতে বুধবার বিভিন্ন জেলায় জেলাশাসকের অফিসের সামনে সভা করার পাশাপাশি ডেপুটেশন দেয় কিষান মোর্চা। চুঁচুড়ায় কর্মসূচিতে ছিলেন কিষাণ মোর্চার রাজ্য সভাপতি রামকৃষ্ণ পাল। আবার পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনকে ঘিরে সম্প্রতি অশান্তির জেরে পুরুলিয়ার জয়পুরে গুলিতে দলের দুই কর্মীর মৃত্যুর ঘটনাটি নিয়ে সরব হয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব।

[অধ্যাপকদের ছাড়ার সরকারি নির্দেশ, ‘উপর মহল’-এর উলটো চাপে দিশাহারা অধ্যক্ষরা]

পুলিশের গুলিতে জয়পুরে দলের দুই কর্মীর মৃত্যুর অভিযোগ আগেই তুলেছিল তারা। বুধবার মৃতদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রাজ্যপালের কাছে দেখা করেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়, সায়ন্তন বসু, বিধায়ক মনোজ টিগ্গা প্রমুখ। বিজেপি নেতৃত্ব রাজ্যপালের কাছে আর্জি জানিয়েছে যে, পুলিশের গুলিতে দলের দুই কর্মীর মৃত্যুর ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করতে হবে। এদিন মৃত দামোদর মণ্ডলের ছেলে সুভাষ মণ্ডল ও নিরঞ্জন গোপের ভাই পিলু গোপকে নিয়ে রাজভবনে এসেছিলেন বিজেপি নেতারা। এদিকে, ৩০০ জন মতুয়া এবং কয়েকটি মঠের সন্ন্যাসীরা বুধবার বিজেপির রাজ্য দপ্তরে গিয়েছিলেন। তারা দলের অসংগঠিত শ্রমিক সংগঠনে যোগ দিয়েছেন বলে রাজ্য নেতৃত্বের দাবি। যোগদানকারীদের দাবি মতো মাসে মাসে পেনশন ও ধর্মীয়স্থানে যাওয়ার জন্য ট্রেনে বিনা পয়সায় ভ্রমণের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে রাজ্য বিজেপির তরফে আর্জি জানানো হচ্ছে। রাজনৈতিক মহল মনে করছে, মতুয়া ভোটব্যাংকে থাবা বসাতেই এই কৌশল গেরুয়া শিবিরের।

[লক্ষ্মীপুজোর পরই দক্ষিণেশ্বরে চালু স্কাইওয়াক, ঘোষণা ফিরহাদের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে