৫ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ২১ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মঙ্গলবার ক্রিপ্টোকারেন্সি ও ব্লকচেইন প্রযুক্তি নিয়ে এসে ইতিহাস সৃষ্টি করল জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া সাইট ফেসবুক। সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, ফেসবুক নিজেদের ক্রিপ্টোকারেন্সির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করল এদিন। এই ক্রিপ্টোকারেন্সির নাম  ‘লিবরা’। এই ব্যাপারে ভিসা, মাস্টারকার্ড, পেপ্যাল এবং ইউবের-সহ একডজন সংস্থার সঙ্গে ফেসবুক চুক্তিবদ্ধ হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের মরশুমে গ্রাহকদের জন্য ‘অভিনন্দন প্ল্যান’ নিয়ে হাজির BSNL]

বিশেষজ্ঞদের মতে, ফেসবুকের ক্রিপ্টোকারেন্সি আনার ফলে বিশ্বব্যাপী ব্যঙ্ক পরিষেবায় আমূল পরিবর্তন ঘটবে। ফেসবুকের এই ক্রিপ্টোকারেন্সি প্রকল্প সফল হলে, অচিরেই বিশ্বের সব আর্থিক লেনদেন ব্লকচেইন প্রযুক্তির আওতায় চলে আসবে। প্রচলিত মুদ্রা অর্থাৎ ডলার, পাউন্ড, টাকা ইত্যাদির মতো, ক্রিপ্টোকারেন্সিও এক ধরনের ভার্চুয়াল মুদ্রা বা বিনিময় মাধ্যম। ব্লকচেইন প্রযুক্তির মাধ্যমে লেনদেনের জন্য এই ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করা হয়। প্রচলিত এমন মুদ্রা হলো—বিটকয়েন, বিটক্যাশ, মোনেরো, লাইটকয়েন ইত্যাদি। অন্যদিকে ব্লকচেইন হল ডেটা সংরক্ষণ করার একটি নিরাপদ ও উন্মুক্ত পদ্ধতি। এ পদ্ধতিতে তথ্য বিভিন্ন ব্লকে একটির পর একটি চেইন আকারে সংরক্ষণ করা হয়।

[ আরও পড়ুন: নতুন টিভি কেনার পরিকল্পনা? বিশ্বকাপ উপলক্ষে আকর্ষণীয় ছাড় দিচ্ছে Xiaomi ]

ইতিমধ্যেই বিশ্বের বৃহৎ আর্থিক লেনদেন পরিষেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান-সহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক গ্রাহক পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা ফেসবুকের সঙ্গে ‘লিবরা’ ক্রিপ্টোকারেন্সির বিষয়ে চুক্তি করেছে। এই সংস্থাগুলি ফেসবুকের ক্রিপ্টোকারেন্সি তৈরির জন্য এক কোটি ডলার করে বিনিয়োগ করবে। সংস্থাগুলি ‘লিবরা অ্যাসোসিয়েশন’ নামে একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের অধীনে থেকে ফেসবুকের ডিজিটাল কয়েন ব্যবস্থাটি পরিচালনা করবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূলত ফেসবুকের ২০০ কোটিরও বেশি মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারীর কাছে এই ডিজিটাল কয়েন কতটা জনপ্রিয় হয়, তা যাচাই করতেই অন্য সংস্থাগুলি ফেসবুকের সঙ্গে যোগ দিয়েছে। দি ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে বলা হয়, উদ্যোগটি সফল হলে, তা থেকে লাভবান হওয়ার আশাতেই মাস্টারকার্ড ও ভিসার মতো সংস্থা ফেসবুকের ডিজিটাল মুদ্রা ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: এবার ড্রোনই পৌঁছে দেবে অর্ডার করা খাবার, সৌজন্যে Zomato ]

মনে করা হচ্ছে, ফেসবুক নিজেদের ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার সহজ করতে প্রচলিত এটিএম বুথের মতো ব্যবস্থা রাখার পরিকল্পনা করছে। এসব বুথ থেকে ‘লিবরা’ মুদ্রা দিয়ে দেশের প্রচলিত সরকারি মুদ্রা নিতে পারবেন গ্রাহকরা। তবে বিশ্লেষকদের একাংশের মত, ডিজিটাল মুদ্রা আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করার আগে বেশকিছু আইন-কানুনের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে ফেসবুককে। এ ছাড়া এই মুদ্রার নিরাপত্তা ও অবৈধ আর্থিক লেনদেনের ঝুঁকি দূর করার পর্যাপ্ত ব্যবস্থাও রাখতে হবে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং