BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

OMG! এই ফ্যাব্রিকের পোশাকে ৩০ মিনিটেই মরবে করোনা ভাইরাস! সংস্থার দাবিতে শোরগোল

Published by: Sulaya Singha |    Posted: June 28, 2020 5:19 pm|    Updated: June 28, 2020 5:19 pm

An Images

ছবি প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এ বলে আমায় দেখ তো ও বলে আমার। এক দেশ দাবি করছে তারা করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কার করে ফেলেছে তো সঙ্গে সঙ্গে অন্য দেশ সুর চড়াচ্ছে, তারা ভাইরাসের বধের ওষুধ তৈরি শুরুও করে দিয়েছে। বিজ্ঞানীরা যখন দিনরাত এক করে রোগমুক্তির উপায় খোঁজার চেষ্টা চালাচ্ছেন, তখন সকলকে চমকে দিল এক পোশাক প্রস্তুতকারী সংস্থা। তাদের দাবি, সংস্থার তৈরি বিশেষ ফ্যাব্রিকেই মরবে ভাইরাস!

হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। মুম্বইয়ের জনপ্রিয় পোশাক প্রস্ততকারী সংস্থা ডনিয়র (Donear Industries) জানিয়েছে, তারা অত্যাধুনিক এক ধরনের ফ্যাব্রিক তৈরি করেছে, যা ৩০ মিনিটের মধ্যেই ধরাশায়ী করবে কোভিড-১৯-কে। সুইস সংস্থা HeiQ-এর সঙ্গে হাত মিলিয়ে অ্যান্টি-ভাইরাল ফ্যাব্রিক বানানো হচ্ছে। নিও টেক ব্র্যান্ড হিসেবে যে উপাদান বাজারে আনা হচ্ছে। ডনিয়র ইন্ডাস্ট্রির সিইও রাজেন্দ্র আগরওয়াল বলেন, “HeiQ কোম্পানির Viroblock NPJ03 প্রযুক্তি নতুন নয়। অনেকদিন ধরেই এর নাম শোনা যায়। তবে করোনা আবহে এটিকে নতুন করে কাজে লাগানো হয়েছে। এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রযুক্তিটি প্রয়োগ করে দেখা হয়েছে। এবং মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে মিলেছে সার্টিফিকেট।” অস্ট্রেলিয়ায় পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে, এই ফ্যাব্রিক ৯৯.৯৯ শতাংশ ভাইরাস মেরে ফেলতে সক্ষম।

[আরও পড়ুন: লাগাতার বিদ্বেষমূলক পোস্টে বিরক্ত বিজ্ঞাপনদাতারা, বিপুল ক্ষতির মুখে Facebook]

একইসঙ্গে তিনি জানান, গত কয়েক বছর ধরেই অ্যান্টি-ভাইরাল ফ্যাব্রিক তৈরি ও সরবরাহ করছে কোম্পানি। এমনকী মার্কিন মুলুকের একটি মেডিক্যাল টেক্সটাইল কোম্পানিতেও তাদের প্রোকাক্ট রপ্তানি করা হয়। এটি কোভিড-১৯ প্রতিরোধেও সক্ষম জেনে ভারতীয় বাজারের জন্য এর বেশি মাত্রায় উৎপাদন শুরু হয়েছে। polyester-viscose স্যুটিং এবং worsted স্যুটিং- এই দুটি ফ্যাব্রিকই ভাইরাস বধে বাজিমাত করবে বলে দাবি সংস্থার। এই উপাদান দিয়ে ট্রাউজার, জ্যাকেট, শার্ট যা ইচ্ছা তৈরি করা যাবে। একাধিকবার ব্যবহারেও ফ্যাব্রিকটি খারাপ হবে না বলেও জানিয়েছে সিইও।

জুনেই এক হাজারেরও বেশি পাইকারি ক্রেতার থেকে এই ফ্যাব্রিকের অর্ডার পেয়েছে কোম্পানি। কিন্তু প্রশ্ন হল, এমন অমূল্য ফ্যাব্রিকের মূল্য কত? শোনা যাচ্ছে, সাধারণ মেটিরিয়ালের তুলনায় এই ফ্যাব্রিকের দাম ২০ শতাংশ বেশি।

[আরও পড়ুন: স্যানিটাইজারে মিশছে বিষ! দীর্ঘ ব্যবহারের ফলে মৃত্যুও হতে পারে, বলছেন বিশেষজ্ঞরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement