২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাধ্য হয়ে ব্যস্ত জীবনে প্রিয়জনদের একটু বেশি সময় দিতে গিয়ে নিজের রুটিনের কাটছাঁট করছেন? ব্যস্ততার মাঝে কি শরীরচর্চারও সময় পাচ্ছেন না? ভেবেও পেডিকিওর করাতে যাওয়া হচ্ছে না? অথচ ভাবুন সপ্তাহান্তে প্রেমিকের সঙ্গে খেতে গিয়ে রেস্তরাঁয় যে কীভাবে কমপক্ষে দু’ঘণ্টা সময় কেটে যাচ্ছে, তা বুঝেও কিছুই করতে পারছেন না। একবার ভেবে দেখুন তো যদি রেস্তরাঁয় রসনাতৃপ্তির মাঝেই পেডিকিওর করিয়ে নেওয়া যেত, তবে কি ভালই হত তাই না? আপনার জন্য রইল এমনই এক রেস্তরাঁর খোঁজ।

পেটপুজো এবং শরীরচর্চা একসঙ্গে করতে চাইলে আপনাকে পাড়ি জমাতে হবে ইন্দোনেশিয়ার ইয়োগাকার্তার রেস্তরাঁয়। সেখানেই আর পাঁচটি রেস্তরাঁর মতো রয়েছে চেয়ার-টেবিল। সাজসজ্জা দেখে বুঝতে পারা যাবে না হালফিলের রেস্তরাঁর সঙ্গে এর কী তফাৎ। তবে ভিতরে ঢুকলেই দেখবেন আপনার পা ডুবে গেল জলে। সঙ্গে সঙ্গে আপনার পা লক্ষ্য করে ধেয়ে আসছে একঝাঁক ছোট ছোট তেলাপিয়া মাছের চারা। আপনি যখন খাওয়াদাওয়া নিয়ে ব্যস্ত তখন আপনার পা পরিষ্কারে ব্যস্ত জলজ প্রাণীরা। দেখবেন একইসঙ্গে হয়ে যাচ্ছে পেটপুজো এবং পেডিকিওর।

[আরও পড়ুন: কাজ ফেলে দুধের শিশুর প্রাণরক্ষা, জোম্যাটো কর্মীর মানবতাকে কুর্নিশ নেটিজেনদের]

রেস্তরাঁ মালিক ইমাম নুর বলেন, “গত জুনে এই রেস্তরাঁর পথচলা শুরু হয়। এত লোকের সাড়া মিলবে তা প্রথমে ভাবিনি। ভেবেছিলাম আমি ছোট করে কিছু একটা শুরু করব। কিন্তু এখন সারাদিনে বহু মানুষ এখানে ভিড় জমান। খাওয়াদাওয়া, পেডিকিওর ছাড়াও এটা এখন প্রায় দেখার জায়গা হয়ে গিয়েছে। খুব ভাল লাগছে।” রেস্তরাঁ মালিক আরও বলেন, “বিদেশে এমন রেস্তরাঁ বহু জায়গায় রয়েছে। তবে এমন রেস্তরাঁ চালাতে গেলে মাছেদের চিকিৎসার বন্দোবস্ত করতে হয়। এখানে বিদেশের মতোই সমস্ত নিয়মকানুন মানছি।” সাধারণ মানুষেরাও এই রেস্তরাঁয় এসে ভীষণ খুশি। ব্যতিক্রমী রেস্তরাঁয় যে একবার এসেছেন সে বারবার ঘুরে যান। তাই সময় পেলে খাওয়াদাওয়ার পাশাপাশি পেডিকিওর করাতে আপনিও ওই রেস্তরাঁয় ভিড় জমাতেই পারেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং