BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা মোকাবিলায় মানবদেহে পরীক্ষার ছাড়পত্র পেল আর এক ভারতীয় সংস্থার তৈরি টিকা

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: July 3, 2020 11:09 am|    Updated: July 3, 2020 11:09 am

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা রোধে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল দেশ। ভারত বায়োটেকের পর এবার আরেকটি ভারতীয় সংস্থা প্রস্তুত করল করোনার টিকা! সেই ভ্যাকসিনই মানবদেহে ট্রায়ালের ছাড়পত্র দিল কেন্দ্র।

দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিরোধীরা যতই কটাক্ষ করুক সেই মন্তব্যে কর্ণপাত করতে নারাজ কেন্দ্র। করোনা রোধে একেবারে আদা-জল খেয়ে মাঠে নেমে পড়েছে মোদি সরকার। বিভিন্ন রাজ্যের একাধিক প্রতিষ্ঠান মারণ ভাইরাস রোধে লাগাতার কাজ করে চলেছে। এমনকি আয়ুর্বেদিক ওষুধও বাদ পড়েনি এই লড়াই থেকে। গত মাসে ভারত বায়োটেকের ‘কোভ্যাক্সিন’ আবিষ্কারের পর এবার আরেকটি ভারতীয় সংস্থা আশার আলো দেখাল। করোনার টিকা প্রস্তুত করল দেশের সবচেয়ে বড় ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি ‘জাইডাস ক্যাডিলা’ (Zydus Cadila) । তাদের আবিষ্কৃত টিকাই ভারতে হিউম্যান ট্রায়ালের অনুমোদন পাওয়া দ্বিতীয় ভ্যাকসিন। মোট দু দফায় এই সংস্থা পরীক্ষা চালাবে বলে জানা যায়। সম্প্রতি ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (DCGI) এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফ থেকে এই সংস্থা মানবদেহে এই টিকা পরীক্ষা করার ছাড়পত্র পেয়েছে।

[আরও পড়ুন:দেশে উর্ধ্বমুখী করোনা গ্রাফ, একদিনে সংক্রমণ ২০ হাজারের গণ্ডি পার]

করোনা রোধে ভ্যাকসিন প্রস্তুতিতে দিন রাত এক করে কাজ করে চলেছেন বিশ্বের তাবড় তাবড় বিজ্ঞানীরা। ফলে মারণ ভাইরাসের টিকা আবিষ্কার করা রীতিমতো প্রতিযোগিতা খাঁড়া করেছে বিশেষজ্ঞদের মধ্যে। কে কার আগে টিকা আবিষ্কার করে সফল হবে? কোন দেশের মাথায় উঠবে সেরার শিরোপা? তাই নিয়ে যখন চরম উত্তেজনা চলছে তখন সেই লড়াইতে নাম লিখিয়েছে ভারতও। ইতিমধ্যেই জুন মাসে ভারত বায়োটেক ও ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজি মিলে প্রস্তুত করেছে করোনার টিকা। ৭ জুলাই থেকে সেই টিকার ট্রায়াল শুরু হবে। ১৫ আগস্ট থেকে তা বাজারেও চলে আসবে বলে জানা যায়। তবে এই দুটি ভারতীয় সংস্থা ছাড়াও ভারতের প্রায় ৩০টি গ্রুপ করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করছে বলে জানিয়েছিল কেন্দ্র। তবে কোন ভ্যাকসিন মানব শরীরে গিয়ে দ্রুত করোনা রোধ করবে তার উত্তর সময়ই দেবে।

[আরও পড়ুন:মৃদু উপসর্গযুক্ত কোভিড রোগীদের জন্য ১০৬টি সেফ হোম চালু করে দিল রাজ্য]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement