BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনার বিরুদ্ধে ৯২ শতাংশ কার্যকরী স্পুটনিক ফাইভ, ট্রায়ালের মাঝেই দাবি রাশিয়ার

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: November 12, 2020 8:42 am|    Updated: November 12, 2020 8:42 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বড়সড় অগ্রগতি! রাশিয়ার তৈরি করোনার টিকা স্পুটনিক ফাইভ (Sputnik V) এই মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে ৯২ শতাংশ কার্যকর। তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চলাকালীন এমনটাই দাবি করল রুশ সরকার। রাশিয়ার সার্বভৌম ওয়েলথ ফান্ডের তরফে দাবি করা হল, অন্তর্বর্তী ট্রায়ালে ৯২ শতাংশ সফলভাবে করোনা প্রতিরোধ করতে পারছে তাদের তৈরি টিকা।

স্পুটনিক ফাইভ। এটিই পৃথিবীর প্রথম করোনার ভ্যাকসিন (Corona Vaccine) যা কিনা জনসাধারণের ব্যবহারের জন্য বাজারে আনা হয়েছিল। তবে তখনও তথাকথিত তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল বা ‘লার্জ স্কেল’ ট্রায়াল হয়নি। আগস্টে জনসাধারণের জন্য ভ্যাকসিনটি ব্যবহারের অনুমতি দিলেও, ‘লার্জ স্কেল’ ট্রায়াল শুরু হয়েছে সেপ্টেম্বরে। আর সেই ট্রায়ালেরই অন্তর্বর্তীকালীন ফলাফল প্রকাশ করেছে রাশিয়া। তাঁদের দাবি, যারা যারা এই ভ্যাকসিনের দুটি ডোজই নিয়েছেন, তাঁদের মধ্যে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের প্রবণতা ৯২ শতাংশ কম। অর্থাৎ এই ভ্যাকসিনটি করোনার বিরুদ্ধে ৯২ শতাংশ কার্যকর। রাশিয়ার এই দাবি সত্যি হলে, করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সেটা হবে বড়সড় পদক্ষেপ। এর আগে মার্কিন সংস্থা ফাইজার দাবি করেছিল, করোনার (Coronavirus) বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তাঁদের তৈরি টিকা ৯০ শতাংশ কার্যকর। তাদের সঙ্গে পাল্লা দিতেই সম্ভবত স্পুটনিক ফাইভের ট্রায়ালের অন্তর্বর্তীকালীন এই রিপোর্ট প্রকাশ করা হল।

[আরও পড়ুন: নাভালনি মামলায় পুতিনকে ‘ক্লিনচিট’ দিয়ে ‘পুরস্কৃত’ সাইবেরিয়ার চিকিৎসক!]

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এবং আরডিআইএফ (রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড)-এর সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছে গামালিয়া সায়েন্টিফিক রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ এপিডেমিয়োলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজি (Gamaleya National Research Center of Epidemiology and Microbiology)। রাশিয়ার দাবি অনুযায়ী এটিই পৃথিবীর প্রথম কার্যকরী করোনা ভ্যাকসিন। যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-সহ বিশ্বের একাধিক দেশ এই ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে। কারণ, টিকাটির সাফল্য ঘোষণা করার সময়ও এর ট্রায়াল সম্পর্কে কোনও তথ্য জনসমক্ষে আনা হয়নি। পরে WHO-সহ বিভিন্ন দেশের স্বীকৃতি পেতে ট্রায়াল শুরু হয়েছে। এই মুহূর্তে মস্কোর ২৯টি ক্লিনিকে ৪০ হাজার মানুষের উপর এই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চলছে। তার মধ্যে ১৬ হাজার মানুষের উপর করা পরীক্ষার ভিত্তিতে এই অন্তর্বর্তী রিপোর্ট প্রকাশ করেছে রাশিয়া।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement