১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নাভালনি মামলায় পুতিনকে ‘ক্লিনচিট’ দিয়ে ‘পুরস্কৃত’ সাইবেরিয়ার চিকিৎসক!

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: November 11, 2020 12:29 pm|    Updated: November 11, 2020 12:29 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কর্মদক্ষতা না স্রেফ পুতিনের নেকনজর? নাভালনি বিষকাণ্ডে সাইবেরিয়ার সেই চিকিৎসক মন্ত্রকের দায়িত্ব পাওয়ায় উঠছে এমন প্রশ্নই। তা প্রশ্ন উঠাই স্বাভাবিক। কারণ সাইবেরিয়ার হাসপাতালের এই চিকিৎসক রুশ বিরোধী নেতার শরীরের বিষয়ের অস্তিত্ব উড়িয়ে দিয়ে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে ‘ক্লিনচিট’ দিয়েছিলেন।

[আরও পড়ুন: ভারতের দৃঢ়তায় চূর্ণ পাক সেনার মনোবল! চাঙ্গা করতে সীমান্ত পরিদর্শনে পাক সেনাপ্রধান]

রুশ সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, সাইবেরিয়ার ওমস্ক হাসপাতালের প্রধান আলেকজান্ডার মুরাখোভস্কিকে প্রাদেশিক স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নিযুক্ত করা হয়েছে। গত আগস্ট মাসে বিমানে আচমকা জ্ঞান হারানোর পর এই হাসপাতালেই নিয়ে যাওয়া হয় অ্যালেক্সেই নভালনিকে। চিকিৎসা চলাকালীন এই মামলার ক্রেমলিনের ‘নির্দেশে’ নার্ভ এজেন্ট নভিচকের প্রয়োগ ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে মুরাখোভস্কির বিরুদ্ধে। প্রসিডেন্ট পুতিনের দলের সমর্থক ওই চিকিৎসক নিজের রিপোর্টে জানিয়েছিলেন যে, ‘মেটাবলিক ডিজঅর্ডারে’ ভুগছেন নাভালনি। তাঁর শরীরের ব্লাড সুগরের মাত্র অনেকটা কমে যাওয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, শুরুর দিকে নভালনিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জার্মানি নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাবে তুমুল আপত্তি জানিয়েছিলেন তিনি।

উল্লেখ্য, অ্যালেক্সেই নাভালনি (Alexei Navalny) মামলায় ক্রমেই চাপ বাড়ছে রাশিয়ার উপর। বিশেষ করে প্রশ্নের মুখে পড়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এবার মস্কোকে আরও বেকায়দায় ফেলে ছয় রুশ আধিকারিক ও একটি সংস্থার উপর নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (EU)। গত আগস্ট মাসের ২০ তারিখ সাইবেরিয়ার টমস্ক থেকে বিমানে মস্কো ফিরছিলেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের প্রবল সমর্থক নাভালনি ( Alexei Navalny)। মাঝ আকাশে আচমকাই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। উপায় না দেখে ওমস্ক শহরে বিমানের জরুরি অবতরণ করিয়ে শুরু হয় চিকিৎসা। নাভালনি ঘনিষ্ঠদের প্রাথমিক ধারণা, টমস্ক বিমানবন্দরে তাঁর চায়ে বিষ মেশানো হয়েছে। চিকিৎসকরা জানান, নাভালনির স্নায়ুতন্ত্র ক্রমশ দুর্বল হয়ে পড়ছিল। কোমায় আচ্ছন্ন হন তিনি। সেটা বিষের প্রভাবে বলেই ধারণা করা হচ্ছিল। এরপর নাভালনির শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হতে থাকায় জার্মানির বার্লিনে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকরা পরীক্ষানিরীক্ষার পর বিষ প্রয়োগের ব্যাপারটি নিশ্চিত করেন। তারপর সুইডেন ও ফ্রান্সের গবেষণাগারও সাফ জানায়, প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর বিরোধী নাভালনির উপর সোভিয়েত জমানার ভয়াবহ নার্ভ এজেন্ট নভিচক প্রয়োগ করা হয়েছিল।

[আরও পড়ুন: জনমতের পরোয়া নেই! হোয়াইট হাউস ছাড়বেন না ট্রাম্প, জল্পনা উসকে ইঙ্গিত পম্পেওর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement