Advertisement
Advertisement
করোনা ভাইরাস

গরম বাড়লেই কাবু হতে পারে মারণ করোনা ভাইরাস, মত চিকিৎসকদের

বেশি করে জল খান তাতেই মারণ চিনা ভাইরাসের কবল থেকে দূরে থাকা সম্ভব।

Doctor's arrange a seminar in Kolkata to discuss about Corona Virus
Published by: Sayani Sen
  • Posted:March 9, 2020 7:14 pm
  • Updated:March 9, 2020 9:03 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আতঙ্কে কাঁটা গোটা বিশ্ব। কীভাবে যে মারণ চিনা ভাইরাসকে প্রতিহত করা যায়, তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় প্রায় সকলেই। তবে চিকিৎসকরা মনে করছেন, তাপমাত্রা বাড়লেই কাবু হবে ভয়ংকর ভাইরাস। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, অযথা গুজবে কান দিয়ে মাস্ক না পরে, বেশি করে জল খান তাতেই মারণ চিনা ভাইরাস নিধন করা সম্ভব।

গোটা বিশ্বের ৯৪ টি দেশে থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাস। তার জেরে আতঙ্কিত প্রায় সকলেই। সমস্যা একটাই মারণ চিনা ভাইরাস কীভাবে রোখা সম্ভব, সে বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা নেই কারও। তার জেরে দুশ্চিন্তায় চিকিৎসক থেকে আমজনতা প্রায় সকলেই। করোনা ভাইরাস নিয়ে আলোচনা করতে সম্প্রতি বাইপাসের ধারে একটি পাঁচতারা হোটেলে ন্যাশনাল সেমিনারের আয়োজন করা হয়। তাতে উপস্থিত ছিলেন সাতটি দেশের এবং রাজ্যের অন্তত পাঁচশো চিকিৎসক। ইন্ডিয়ান অ্যাকাডেমি অফ পেডিয়াট্রিক কোল্ড ফিল্ড ব্রাঞ্চ চিকিৎসক অতনু ভদ্র জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) তরফ থেকে এই ভাইরাসটির নাম দেওয়া হয়েছে  SARS COV2। আর এর দ্বারা সৃষ্ট রোগের নাম দেওয়া হয় COVID 19।

Advertisement

Corona virus করোনা ভাইরাস নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সর্দি-কাশির মতো এটি একটি ভাইরাস। তার থেকে মারাত্মক ক্ষতিকারক ডেঙ্গু। গরম বাড়লে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ অনেকটাই কমে যাবে। তাপমাত্রা ৩৫ ডিগ্রির বেশি হয় হলে এই ভাইরাস কাবু হবে। দেশবাসীর আতঙ্কের কোনও কারণ নেই। এই ভাইরাস কিন্তু মানুষের প্রাণহানি ঘটাতে পারে না। মাত্র ২-৩ শতাংশ মানুষের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণহানি ঘটেছে। এর থেকে অন্যান্য ভাইরাস মানুষের প্রাণহানির আশঙ্কা অনেক বেশি বাড়িয়ে দিতে পারে। মূলত শিশু, বয়স্ক এবং ডায়াবেটিস রোগীদের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তবে ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। বরং প্রচুর জল খান এবং বিশ্রাম নিন।

Advertisement

 

Corona-Seminar

[আরও পড়ুন: সাবধান! দোলে কুকুরের গায়ে রং দিলেই ঠাঁই হতে পারে শ্রীঘরে]

চিকিৎসকের পরামর্শ, অযথা আতঙ্কিত হয়ে নোভেল করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে মাস্কের ব্যবহারের এখনই প্রয়োজন নেই। একমাত্র বিশেষ ধরনের মাস্ক ছাড়া অন্য মাস্ক ব্যবহার করে তেমন কোনও লাভই হবে না। বাইরে বেরনোর সময় সাবধনতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। নিজেকে জীবাণুমুক্ত রাখতে বারবার সাবান দিয়ে হাত ধোয়ারও পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। করোনা ভাইরাসকে ঠেকাতে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা উন্নত করার ব্যাপারেও আলোচনা হয় ওই সেমিনারে। 

Hand wash

 

[আরও পড়ুন:  করোনা সন্দেহে কোয়ারেন্টাইনে, জয়পুরের হাসপাতাল থেকে পালিয়ে এলেন নদিয়ার যুবক]

এখনও পর্যন্ত ভাইরাসকে কাবু করার মতো কোনও টিকা কিংবা ওষুধ আবিষ্কার হয়নি। চিকিৎসক জানান, আমেরিকার একটি জায়গা থেকে খবর আসছে যে করোনা ভাইরাসের টিকা আবিষ্কার অনেকটাই শেষের পথে। সেমিনারে উপস্থিত চিকিৎসকদের অবশ্য মত টিকা আবিষ্কার শেষের পথে হলেও তা বাজারে আসতে পরীক্ষার পরে অনেকটাই সময় লাগবে। তাও প্রায় দু’বছরের কাছাকাছি। আপাতত সাবধনতা অবলম্বন ছাড়া মারণ চিনা ভাইরাসকে দূরে রাখার মতো আর কোনও উপায় নেই।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ