৩ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: খেলব হোলি ভাং খাব না তাই কখনও হয়! বছরের এই একটা দিন ভাং বা পানীয়তে গলা অল্পবিস্তর অনেকেই ভেজান। তার সঙ্গে দুরন্ত রং খেলার উত্তেজনা। খানাপিনা শেষে বিকেলে উপরি পাওনা একরাশ ক্লান্তি, হালকা মাথা ঝিমঝিম। পরদিন যথারীতি হ্যাংওভার। অল্প কিছু নিয়মকানুন যদি মাথায় রেখে চলা যায়, তাহলে সহজেই এড়ানো যায় এই হ্যাংওভার এপিসোড। তারই কিছু টিপস।

  • ভাং বা অ্যালকোহল যাই খান, তার ফাঁকে ফাঁকে জল খেতে ভুলবেন না। এতে শরীর চট করে ডিহাইড্রেটেড হবে না।
  • একেবারে খালি পেটে পানীয় না খেয়ে অল্প কিছু খাবার সঙ্গে খান।
  • ভাং বা অ্যালকোহল যাই খান, চেষ্টা করুন আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী অর্থাৎ শরীর বুঝে খেতে। তাড়াহুড়ো বা অনে্যর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে না খাওয়াই ভাল।
  • ড্রিঙ্ক করার পরের দিন মাথা ধরার প্রধান কারণ ডিহাইড্রেশন। মাথা যদি ধরেই যায় অল্প করে বারেবারে জল খান। ডাবের জল, অল্প মধু দিয়ে জল, চিনি ছাড়া লেবুর জলও খাওয়া যেতে পারে।
  • যদি অ্যালকোহলিক ড্রিঙ্ক খাওয়ার প্ল্যান থাকে, তাহলে পার্টিতে যাওয়ার আগে এক চামচ অলিভ অয়েল খেয়ে নিন। এতে পাকস্থলীর অ্যালকোহল শোষণ করতে সময় বেশি লাগবে।
  • সকালবেলার ব্রেকফাস্ট স্কিপ করবেন না। এক পিস পাউরুটি, সঙ্গে একটা কলা বা অন্য কোনও ফল খান। আপেল, কলা, কলার স্মুদিও হ্যাংওভার কাটাতে সাহায্য করে। কলা, পিনাট বাটার, দুধ মিশিয়ে তৈরি স্মুদিও জলখাবারে খাওয়া যেতে পারে।

শান্তির নিদ্রা চান? ঘুম দিবসে নেটিজেনরা বাতলে দিলেন কয়েকটি উপায় ]

  • হ্যাংওভারের মাথাব্যথায় পেনকিলার খাবেন না। এতে লিভারের ক্ষতির সম্ভানা প্রবল। গরম পানীয়- যেমন, গ্রিন টি খেয়ে যদি ব্যথা না কমে, সেক্ষেত্রে পেন বাম মাসাজ করুন।
  • হোলির পরদিন ভারী খাবার এড়িয়ে চলুন। বদলে টোম্যাটো সু্যপ, ক্লিয়ার স্যুপ, নুডল স্যুপ ও হালকা সহজপাচ্য খাবার খান।
  • আদা হ্যাংওভারের অব্যর্থ দাওয়াই। বিশেষত পরদিনের গা গোলানো ও বমিভাব কাটানোর জন্য। কাঁচা আদার কুচি মুখে রাখতে অসুবিধা হলে ক্যান্ডিড জিঞ্জারও কাজ করবে ভালই। প্রতি দু’ঘণ্টা অন্তর দু’তিন কুচি আদা চিবিয়ে খেয়ে নিন। ১/২ চা চামচ আদা কুরনো, অল্প পাকা তেঁতুলের ক্বাথের সঙ্গে ১ চা চামচ ব্রাউন সুগার মিশিয়ে খেলেও গা বমি ভাব থেকে উপকার পাবেন।
  • ৫ কাপ জলে ১ চা চামচ নুন ও ৪ চা চামচ চিনি মিশিয়ে নিন। বারেবারে খান। ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করেও খেতে পারেন।
  • ড্রিঙ্ক করার পরদিন সকালে উঠে কফি হ্যাংওভার বাড়িয়ে দিতে পারে। পরিবর্তে গ্রিন টি খান।
  • হ্যাংওভারে মাথা ঘুরলে একটা পাকা কলা অথবা মধু দিয়ে পাকা কলার স্মুদি খান।
  • হ্যাংওভারের ক্লান্তি কাটাতে ঠান্ডা জলে স্নান করুন।
  • ভাল করে ঘুমন। গা বমি ভাব, ক্লান্তি, মাথাব্যথা ও হ্যাংওভার সংক্রান্ত যাবতীয় সমস্যার সমাধান হবে।

ভোটে গলাবাজি, অব্যর্থ টোটকা যষ্টিমধু ও লবঙ্গ ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং