২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ১৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

তীব্র গরমেও ঘরে AC’র তাপমাত্রা কত থাকবে, করোনা আবহে স্থির করে দিল কেন্দ্র

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 25, 2020 4:39 pm|    Updated: April 25, 2020 4:41 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বৈশাখের কয়েকটা দিন পেরিয়েছে। আসছে জ্যৈষ্ঠ। গ্রীষ্মের প্রখর তাপে কাহিল হওয়ার সময়। কাজকর্ম শেষে ঘরে ঢুকে AC’র হাওয়ায় কিছুটা প্রাণ জুড়ানো। কিন্তু নিজের ঘরে AC’র তাপমাত্রা কতটা রাখবেন, তা আর মোটেই আপনার নিজের নিয়ন্ত্রণে নেই। করোনা পরিস্থিতিতে এ বিষয়েও নির্দিষ্ট নিয়ম বেঁধে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। নির্দেশিকা দিয়ে জানানো হল, তাপমাত্রার মাপকাঠি। ঘরে ঘরে এবার সেই তাপমাত্রাতেই চালাতে হবে এয়ার কন্ডিশন। সেই নিয়ম মেনে সেট করতে হবে আপেক্ষিক আর্দ্রতাও। বেশি গরম লাগলেও তাপমাত্রা হেরফের করার কোনও রাস্তা নেই।

কেন্দ্রের COVID-19 টাস্ক ফোর্স এবং আবহাওয়াবিদরা একযোগে এই মুহূর্তে ভারতের জলবায়ু নিয়ে সমীক্ষা করেছেন। পরামর্শ নেওয়া হয়েছে AC নির্মাতা সংস্থাগুলির ইঞ্জিনিয়াদের সঙ্গেও। সেই সমীক্ষার রিপোর্ট দেখে AC ব্যবহারের নির্দেশিকা স্থির করে দিয়েছে ইন্ডিয়ান সোসাইটি অফ হিটিং, রেফ্রিজারেটিং অ্যান্ড এয়ার কন্ডিশনার ইঞ্জিনিয়ারস।

[আরও পড়ুন: বাইরে থেকে কেনা অত্যাবশ্যকীয় পণ্য এই উপায়ে রাখুন জীবাণুমুক্ত, রইল টিপস]

নয়া নির্দেশিকা অনুযায়ী, AC চালাতে হবে ২৪-৩০ সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রায়। এর কম বা বেশি তাপমাত্রা করা যাবে না। আপেক্ষিক আর্দ্রতা থাকতে হবে অন্তত ৪০ শতাংশ। সর্বোচ্চ আর্দ্রতা হতে পারে ৭০ শতাংশ। তা কমে এলে প্রয়োজনে জল ব্যবহার করে আর্দ্রতা বাড়িয়ে, তুলতে হবে। কারণ, ঘরের মধ্যে শুষ্ক আবহাওয়া বেশি ক্ষতিকারক হতে পারে বলে সতর্কবার্তা দিয়েছেন তাঁরা। লকডাউনে সারাক্ষণ ঘরবন্দি বলে ২৪ ঘণ্টা AC চালাচ্ছেন, তা কিন্তু হবে না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সর্বক্ষণ এক ধরনের আবহাওয়ায় থাকলে, ভিন্ন আবহাওয়ায় মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা কমে যায়। তাই দিনের নির্দিষ্ট সময় এয়ার কন্ডিশন বন্ধ করে ঘরের জানলা, দরজা খুলে বাইরে আলো-বাতাস খেলতে দিন। নাহলে ছোটখাটো অসুস্থতা হানা দেবে সহজেই।

[আরও পড়ুন: ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ করতে বিরক্তি? একঘেয়েমি কাটাতে কাজ করুন এভাবে]

শুধু বাড়িতে AC চালানো নিয়েই নয়, অফিসে এয়ার কন্ডিশন কীভাবে ব্যবহার করতে হবে, সেই সংক্রান্ত পরামর্শও রয়েছে এই নির্দেশিকায়। বলা হয়েছে, AC চালানোর সময়েও অফিসের একজস্ট (Exhaust fan) ফ্যান চালু রাখতে হবে। যাতে বাইরের হাওয়া ভিতরে এবং ভিতরের হাওয়া বাইরে যাওয়ার পথ প্রশস্ত হয়। আর লকডাউনের সময়ে অনেক অফিসই বন্ধ। তাই AC ব্যবহারের দরকার পড়ছে না। এই অবস্থায় সময়মতো এয়ার কন্ডিশনের রক্ষণাবেক্ষণে নজর দিতে হবে। যাতে দীর্ঘদিন অব্যবহারের ফলে তা নষ্ট না হয়ে যায়।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement