১৩ কার্তিক  ১৪২৭  শুক্রবার ৩০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

পোশাক পরেছেন? গায়ে বিছানার চাদর জড়িয়ে ফটোশুট করায় প্রশ্নের মুখে দম্পতি

Published by: Sayani Sen |    Posted: October 18, 2020 1:36 pm|    Updated: October 18, 2020 3:00 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা (Coronavirus) কালেই সদ্য বিয়ে হয়েছে দু’জনের। ভাইরাসের আতঙ্কে বিয়েতে বিশেষ আয়োজন করা যায়নি। বিয়ের পরেও পাহাড় কিংবা সমুদ্রের নির্জনতায় হারিয়ে গিয়ে দু’জনের দু’জনকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব হয়নি। নিরিবিলিতে মন দেওয়া নেওয়ার জন্য রয়েছে শুধু নিজেদের ঘর। কতক্ষণই বা নবদম্পতির সেখানে মন টেকে। তাই তাঁরা স্থির করেন পোস্ট ওয়েডিং ফটোশুটের (Post Wedding Photoshoot) মাধ্যমে নিজেদের প্রেমকে ফুটিয়ে তুলবেন। করলেনও তা। কিন্তু নেটদুনিয়ায় ছবি ছড়িয়ে যাওয়ার পর থেকে সমালোচনার শিকার দম্পতি।

ঋষি কার্তিকেয়ন এবং লক্ষ্মী তাঁদের ফটোগ্রাফার বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে যোগাযোগ করে কেরলের (Kerala) ইদুক্কি চা বাগানে যান। সেখানে ফটোশুট করেন তাঁরা। সেই ছবিগুলি ওই ফটোগ্রাফার বন্ধুরা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। ওই ছবিতে দেখা গিয়েছে, দু’জনে দু’টি সাদা রঙের বিছানার চাদর জড়িয়ে রয়েছেন। ওই অবস্থায় কখনও তাঁরা চা বাগানে দৌড়ে পোজ দিয়েছেন।

Couple

আবার কখনও চা বাগানে চাদর জড়িয়ে অন্তরঙ্গভাবে বসে থাকতে দেখা গিয়েছে।

Couple

[আরও পড়ুন: ‘বিজেপি বেশি আসন পেলেও নীতীশ কুমারই মুখ্যমন্ত্রী হবেন’, জল্পনা উড়িয়ে মন্তব্য অমিত শাহের]

কোনও ছবিতে তাঁদের মধ্যে খুনসুটির প্রকাশ।

Couple

আবার কোনওটায় যেন কাছে পাওয়ার তীব্র বাসনা ফুটে উঠেছে।

Couple

এই ছবিগুলি নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে নিমেষে। যা নেটিজেনদের আলোচনার খোরাক জুগিয়েছে। অনেকেই তীব্র সমালোচনা করেছেন দম্পতির (Couple)। চাদরের তলায় আদৌ কোনও পোশাক রয়েছে, সেই প্রশ্নও তাঁদের দিকে ছুঁড়ে দিয়েছেন কেউ কেউ। আবার অনেকে ভারতীয় সংস্কৃতির প্রসঙ্গ তুলে এ ধরনের ছবিকে ‘অশালীন’ বলতেও ছাড়েননি। তবে নেটিজেনদের একাংশ তাঁদের সমর্থনও করেছেন। প্রাপ্তবয়স্ক তরুণ-তরুণী যা ভাল বুঝেছেন তা করতেই পারেন, সেকথাও বলছেন অনেকেই। কেউ তো আবার এভাবে ভালবাসার জয় হোক বলতেও দ্বিধা করেননি। তবে আলোচনা যতই হোক না কেন, ফটোগুলি সোশ্যাল মিডিয়া (Social Media) থেকে কিছুতেই সরিয়ে দেবেন না বলেই সিদ্ধান্ত ওই দম্পতির।

[আরও পড়ুন: অসমের সব সরকারি মাদ্রাসাকে সাধারণ স্কুলে রূপান্তরিত করা হবে, ঘোষণা হিমন্ত বিশ্বশর্মার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement