BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

গায়ের রং দিয়ে পাত্র-পাত্রীর বিচার? তীব্র বিতর্কের মুখে পড়ে ‘স্কিন কালার’ ফিল্টার সরাল Shaadi.com

Published by: Sulaya Singha |    Posted: June 24, 2020 12:20 pm|    Updated: June 24, 2020 12:20 pm

An Images

ছবি প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গায়ের রং বড় বালাই। চাপা হলেই ভাল পাত্র হাত ফসকে যাবে। পাত্রীর উজ্জ্বল-ফর্সা ছবিই মনে ধরবে পাত্রপক্ষের। এমন ভাবনা থেকেই স্কিন কালার ফিল্টারটি বেশ গর্বের সঙ্গেই শোভা পেত Shadi.com-এ। তবে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়ে শেষমেশ ফিল্টারটি সরিয়ে দিল এই ম্যাট্রিমনিয়াল সাইট।

আমেরিকায় কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর থেকেই বর্ণবৈষম্য নিয়ে উত্তাল হয়েছে গোটা বিশ্ব। প্রতিবাদে সরব হয়েছে বিনোদুনিয়া থেকে খেলার জগতের তারকারা। তারই মধ্যে রোষের মুখে পড়ে Shaadi.com-এর স্কিন কালার ফিল্টারটিও। পাত্র কিংবা পাত্রীর খোঁজে গায়ের রংকে অন্যভাবে গুরুত্ব দেওয়ার বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি মার্কিন মুলুকের বাসিন্দা হেতাল লাখানি। এই অপশনটি সরানোর দাবিতে অনলাইনে আবেদন জানান তিনি। আবেদনে লেখেন, “এশিয়ার দক্ষিণের দেশগুলিতে এখনও গায়ের রংয়ের প্রতি আলাদা দূর্বলতা আছে। ওই জন্যই Shaadi.com-এও গায়ের রং বদলে ফেলার একটি ফিল্টার দেওয়া রয়েছে। অর্থাৎ গায়ের রং বিচার করে পাত্র-পাত্রী খোঁজার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। আমরা চাই এই ওয়েবসাইটটি চিরকালের মতো ফিল্টারটি সরিয়ে ফেলুক। যাতে সঠিক গায়ের রংয়ের মানুষ পরস্পরকে চিনে নিতে পারে।” এই আবেদনে মেলে বিপুল সাড়া। ১৬০০-এরও বেশি মানুষ আবেদনে সই করেন। এবং শেষমেশ মাথা নত করতে হয় বিয়ের পাত্র-পাত্রী খোঁজ দেওয়ার এই জনপ্রিয় ওয়েবসাইটটিকে।

[আরও পড়ুন: ফ্রোজেন ফুডে লুকিয়ে করোনার বিপদ, শপিং মলে কেনাকাটায় সাবধান করলেন বিশেষজ্ঞরা]

ম্যাট্রিমনিয়াল ওয়েবসাইটটির তরফে জানানো হয়, বিশেষ কোনও উদ্দেশ্যে এই অপশনটি ছিল না। কোনওভাবে সেটি সরাতে ভুলে গিয়েছিল সাইটটি। তবে বর্ণবৈষম্য নিয়ে এ দেশে এর আগেও একাধিকবার প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। ফেয়ারনেস ক্রিমের বিজ্ঞাপন করায় সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে বলিউড অভিনেত্রীদেরও। এবার Shaadi.com-কে মানুষ মনে করিয়ে দিল, গায়ের রং দিয়ে কারও যোগ্যতা বিচার করা যায় না। তার শিক্ষা-আচরণ-স্বভাবই আসল পরিচয়। ওয়েবসাইট থেকে ফিল্টারটি সরানোর এই উদ্যোগ প্রশংসা কোড়াচ্ছে নেটদুনিয়ার।

[আরও পড়ুন: চিন-বিরোধী আন্দোলনেও ঘোচেনি TikTok প্রীতি, জানেন কত শতাংশ ভারতীয় অ্যাপটি ছাড়তে রাজি?]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement