BREAKING NEWS

০৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  সোমবার ২৩ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

১৯৯৯ সালেই ভিডিও গেমে ওমিক্রন! চমকে দেওয়া তথ্য ঘিরে শোরগোল

Published by: Biswadip Dey |    Posted: December 28, 2021 6:22 pm|    Updated: December 28, 2021 6:22 pm

A game released in 1999 called Omikron: The Nomad Soul। Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ওমিক্রন (Omicron) আতঙ্কে কাঁপছে গোটা দুনিয়া। করোনার (Coronavirus) এই নয়া ভ‌্যারিয়েন্ট যে কতটা দ্রুত সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তা ইউরোপের দেশগুলিকে দেখলেই বোঝা যায়। ভারতেও বাড়ছে নতুন করোনা প্রজাতির দাপট। এই পরিস্থিতিতে ওমিক্রন নিয়ে এক নতুন তথ‌্য উঠে এল। যা যথেষ্ট চমকপ্রদও।

২০২১ সালের শেষের দিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম ওমিক্রনের খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল বলে জানে বিশ্ব। কিন্তু আদতে তা নয়। ১৯৯৯ সালেই জন্ম হয়েছে ওমিক্রনের! একটি ভিডিও গেমের (Video game) মাধ‌্যমেই ভয়াবহ এই সংক্রামক অসুখের নাম প্রথম জানা যায়। তবে কি আজ থেকে ২২ বছর আগেই ভিডিও গেমের মধ্যে ইঙ্গিত ছিল ভাইরাসটির?

[আরও পড়ুন: ওমিক্রন আতঙ্কে দিল্লিতে ‘হলুদ’ সতর্কতা, দেশের একাধিক রাজ্যে বাতিল বর্ষবরণের উৎসব]

১৯৯৯ সালে বাজারে আসা একটি ভিডিও গেমের নাম ছিল ‘ওমিক্রন : দ‌্য নোম‌্যাড সোল’। যদিও ইংরেজি নামের বানান এই ভাইরাসের নামের চেয়ে একটু আলাদা ছিল। সি-এর বদলে ওই ওমিক্রনের বানানে ‘কে’ ব‌্যবহার করা হয়। গেমটি সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে লেখা ছিল, “তোমাকে আমার অনেক কিছু বলার আছে। কিন্তু হাতে খুব অল্প সময়। তোমার ব্রহ্মাণ্ডের মতোই সমতুল‌্য অন‌্য একটি ব্রহ্মাণ্ড থেকে এসেছি। আমার বিশ্বের তোমার সাহায‌্য দরকার। শুধুমাত্র তুমিই পারো আমাদের বাঁচাতে।” কিছুটা কাকতালীয় হলেও বর্তমান ওমিক্রন ভাইরাসটিও এক অন‌্য দুনিয়া থেকে এসেছে। উলটো শুধু হল, ওমিক্রন বিদায় নিলে তবেই বাঁচবে আমাদের পৃথিবী।

উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত দেশে ওমিক্রনে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৫৩ জন। যার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি মহারাষ্ট্র এবং দিল্লির। মহারাষ্ট্রে চলছে নৈশ কারফিউ। রাজধানীতে জারি হয়েছে হলুদ সতর্কতা। লাগু করা হয়েছে নয়া বিধিনিষেধ। এদিকে ১০ দিনের নাইট কারফিউ জারি হল কর্ণাটকেও।

[আরও পড়ুন: COVID-19 Vaccine: আরও দুই কোভিড টিকায় ছাড়পত্র কেন্দ্রের, অনুমোদন পেল অ্যান্টি ভাইরাল ড্রাগও]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে