৫ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গুজব রুখতে এবার নয়া পদক্ষেপ করতে চলেছে সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুক৷ এবার শুধুমাত্র ব্যবহারকারীদের কাছে বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য উৎস থেকেই খবর পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করবে বহুজাতিক সংস্থাটি৷

[আরও পড়ুন: প্রযুক্তির আরও উন্নতিতে ফেসবুকে ভুয়ো খবর রুখে দেওয়া সম্ভব, বলছেন বিশেষজ্ঞরা]

ফেসবুক জানিয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রমশ গুজবের পরিমাণ বাড়ছে৷ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ছড়ানো হচ্ছে মিথ্যে খবর৷ তাই দিন-দিন বেড়ে চলা ফেক নিউজ ও গুজব রুখতে বদ্ধ পরিকর সংস্থাটি৷ নিউজ ফিডগুলির নির্ভরযোগ্যতা নিয়ে রেটিং চালু করতে চলেছে সংস্থাটি৷ এর ফলে খবরের সত্যতা নিয়ে মতামত দিতে পারবেন ব্যবহারকারীরা৷ আপাতত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পরীক্ষামূলকভাবে এই কাজটি শুরু করা হবে তারপর বিশ্বজুড়ে এই পদ্ধতি অবলম্বন করা হবে৷ ইতিমধ্যেই ফেক নিউজ রুখতে একাধিক পদক্ষেপ করেছে বিশ্বের সর্বাধিক জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া সাইট ফেসবুক। ভুল ও বিদ্বেষমূলক বার্তা ছড়ানোয় একাধিক অ্যাকাউন্ট ও পেজ বন্ধ করেছে ফেসবুক। এছাড়াও উসকানিমূলক বার্তা যে পেজ বা প্রোফাইলগুলি দিচ্ছে তাদের নিউজ ফিড আটকে দিচ্ছে সংস্থাটি। পাশাপাশি ব্যবহারকারীদের নিজেদের পছন্দের খবর বা নিউজ ফিড বেছে নেওয়ার স্বাধীনতাও দিয়েছে ফেসবুক। যে কোনও খবর না পোস্টের নিচে ‘রিলেটেড আর্টিকল’-এ খবরটির সত্যতা সম্পর্কে অন্যদের মতামত তুলে ধরা হচ্ছে। ফলে এক্ষেত্রে বিভ্রান্তি ছড়ানোর সম্ভাবনা কম থাকছে।

তবে, ভারতের ক্ষেত্রে ফেক নিউজ নিয়ন্ত্রণ করা যে খুব কঠিন তা স্বীকার করে নিচ্ছে কর্তৃপক্ষ। কারণ, ভারতের ভাষার বৈচিত্র। তবে কর্তৃপক্ষের তরফে এক কর্তা আগেই জানিয়েছিলেন, “আগেই বুঝতে পারি ভারতের ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা ভাষায় ফেক নিউজ নিয়ন্ত্রণ করা খুব কঠিন কাজ। তাই আমরা আলাদা আলাদা ভাষার অনুবাদ যন্ত্রের পিছনে সব থেকে বেশি টাকা খরচ করেছি। কোনও পোস্টের ভুয়ো বা আপত্তিকর অংশ নিয়ন্ত্রণে আমরা আগের তুলনায় আমরা অনেক শক্তিশালী।” 

[জানেন, ভুয়ো খবর কীভাবে আটকায় ফেসবুক?]     

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং