৪ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফেসবুক ওয়ালে চোখ রাখলেই ভেসে উঠত নগ্ন মহিলার ছবি। ভাইরাল ভিডিওতে নগ্নতার প্রদর্শন যেন নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু, সেসব এখন অতীত। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এখন সোশ্যাল সাইটটির মাধ্যমে নগ্নতা ছড়ানো রুখতে বড়সড় পদক্ষেপ করেছে সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট। নিজেদের কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ডে বড়সড় বদল আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

[আরও পড়ুন: নির্ভরযোগ্য উৎস থেকেই খবর, গুজব রুখতে নয়া পদক্ষেপ ফেসবুকের  ]

ফেসবুক গ্রাহকরা সাধারণত নিজেদের ওয়ালে সেই সব জিনিস দেখতে চান, বা সেইসব ছবি বা ভিডিও শেয়ার করেন যা তাঁরা দেখতে পছন্দ করেন, বা যা দেখে তাঁরা অভ্যস্ত। এমন কোনও ছবি বা ভিডিও শেয়ার করতে তাঁরা পছন্দ করেন না যাতে আপত্তিকর কিছু রয়েছে। তাই ফেসবুক চাইছে আপত্তিকর, বা নগ্ন ছবি বা ভিডিও গ্রাহকরা যাতে দেখতে না পান তা নিশ্চিত করতে। আপত্তিকর এই তথ্যগুলির মধ্যে থাকছে নগ্নতা, যৌন উত্তেজনামূলক ছবি বা ভিডিও, ভুয়ো অ্যাকাউন্ট, ঘৃণা ছড়ানো বক্তৃতা, স্প্যাম, সন্ত্রাসবাদমূলক অপপ্রচার, এবং হিংসাত্মক ভিডিও। এই সব ছবি বা ভিডিওগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করা এবং তার পদ্ধতি সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট ফেসবুক পেশ করেছে।

[আরও পড়ুন: জানেন, ভুয়ো খবর কীভাবে আটকায় ফেসবুক?]

সংস্থাটির তরফে জানানো হয়েছে, গত দু’বছর ধরে ফেসবুক কমিউনিটি গাইডলাইন্সে ব্যাপক পরিমাণ অর্থ খরচ করেছে। এবছরই প্রথম ফেসবুক আপত্তিকর তথ্য ছড়ানো রুখতে অভ্যন্তরীন নির্দেশিকা জারি করে। মে মাসে ফেসবুকের তরফে যে রিপোর্ট পেশ করা হয়, এই সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়েছে, যাতে গ্রাহকরা বুঝতে পারেন ফেসবুকের কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড কতটা উন্নত হয়েছে। ফেসবুক জানিয়েছে, স্বতঃপ্রণোদিতভাবে ফেসবুক প্রায় দ্বিগুণ পরিমাণ ঘৃণা ছড়ানো বক্তৃতা সরিয়ে দিয়েছে। এই সংখ্যাটা ২৪ শতাংশ থেকে বেড়ে ৫২ শতাংশ হয়েছে। এই পোস্টগুলিকে কেউ রিপোর্ট করার আগেই সরিয়ে দিয়েছে ফেসবুক।আগের তুলনায় স্বতঃপ্রণোদিতভাবে আপত্তিকর পোস্ট সরিয়ে দেওয়ার কাজটি ফেসবুক এখন বেশি বেশি করে করছে। তবে, আরও বেশ কিছু কাজ বাকি আছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং