২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘অশ্লীল’ সুগন্ধীর বিজ্ঞাপন বন্ধ করতে নির্দেশিকা, টুইটার, ইউটিউবকে চিঠি কেন্দ্রের

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: June 4, 2022 6:18 pm|    Updated: June 4, 2022 6:20 pm

Information and Broadcasting ministry asks twitter, youtube to take down sexis ad | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “আমরা চারজন আর ও একা৷ শট কে নেবে?” এই হল বিজ্ঞাপনের ভাষা। টুইটার (Twitter) ও ইউটিউবকে (YouTube) লেয়ারর শট বডি স্প্রে-র (Layer’r Shot  Body Spray) সেই বিজ্ঞাপন তুলে নিতে নির্দেশ দিল কেন্দ্রের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রক (Ministry of Information and Broadcasting)। এই বিষয়ে চিঠি লিখে টুইটার ও ইউটিউবকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রকের বক্তব্য, ওই বিজ্ঞাপনে মহিলাদের অসম্মান করা হয়েছে, এমনকী যৌন হেনস্তাকে উসকানি দেওয়া হয়েছে।

বেশ কিছুদিন ধরেই লেয়ারর শট বডি স্প্রে-র দু’টি বিজ্ঞাপন বিভিন্ন মাধ্যমে সম্প্রচারিত হচ্ছে। যার একটিতে পাঁচ তরুণ ও এক তরুণীকে দেখা যায়। যেখানে চার তরুণ লেয়ার শট বডি স্প্রের খোঁজে একটি ঘরে ঢোকে। যেখানে একটি বিছানায় বসে থাকতে দেখা যায় এক তরুণ ও এক তরুণীকে। ঘরে ঢুকে যৌন ইঙ্গিতবাহী কথা বলে চার তরুণ। তারা বলে, আমরা চারজন আর ও একা৷ শট কে নেবে?” যাতে ভয় পেয়ে যান তরুণী। এই বিজ্ঞাপনটি ও একই ধরনের আরও একটি বিজ্ঞাপনের বিরুদ্ধেই যৌন উসকানি তথা ‘ধর্ষণের সংস্কৃতি’ প্রচারের অভিযোগ উঠেছে। বিজ্ঞাপনটি বাজারে আসা মাত্র একদল মানুষ আপত্তি করতে শুরু করেছিল। এবার তা টুইটার ও ইউটিউবকে তুল নিতে বলল তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রক। অ্যাডভার্টাইসিং স্ট্যান্ডার্ডস কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়াও (Advertising Standards Council of India) দ্রুত এই বিজ্ঞাপনের সম্প্রচার বন্ধ করার নির্দেশিকা জারি করেছে।

[আরও পড়ুন: UPSC-তে পাসই করেননি, অথচ পেলেন সংবর্ধনা, প্রকৃত তথ্য সামনে আসতেই থ স্থানীয়রা]

লেয়ারর শট বডি স্প্রে সংস্থাকে লেখা চিঠিতে তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক জানিয়েছে, ভিডিওটি অশ্লীল ও অনৈতিক। তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রকের গাইডলাইন এবং ডিজিটাল মিডিয়া এথিক্স কোড লঙ্ঘন করা হয়েছে বিজ্ঞাপনে। নির্দিষ্ট লিঙ্গকে হেনস্তা ও অপমান করা হয়েছে। অন্যদিকে শুক্রবার এএসসিআই টুইট করে জানায়, “ভিডিওটি জনস্বার্থ বিরোধী। আমরা দ্রুত বিজ্ঞাপন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছি।”

[আরও পড়ুন: ‘সিবিআই আমাকে মেরে ফেলেছে’, সাংবাদিক খুনের মামলায় আদালতে হাজির হয়ে বলল ‘মৃত’ সাক্ষী]

উল্লেখ্য, বিজ্ঞাপনটি বিভিন্ন মাধ্যমে আসার পরে নেটিজেনদের একটা বড় অংশ তীব্র আপত্তি তুলেছিল। প্রত্যেকেরই বক্তব্য, এই বিজ্ঞাপনে মেয়েদের অসম্মান করা হয়েছে। কেউ কেউ লেখেন, হালকা চালে গণধর্ষণের উৎসাহ দেওয়া হয়েছে বিজ্ঞাপনে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে