৫ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ২১ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

শুভঙ্কর বসু: মানুষ নয়। এবার ভোটের হার গুনবে যন্ত্র! আজ বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে চালু এই পদ্ধতি।

সাধারণত ভোটের দিন প্রতি দু’ঘণ্টায় ভোটদানের হার যাচাই করাই রীতি। কারণ এর ফলেই একটি সংশ্লিষ্ট এলাকার ভোটিং ট্রেন্ড বোঝা সম্ভব। বুথজ্যাম, ছাপ্পার মতো ঘটনার আভাস দিতে পারে প্রতি দু’ঘণ্টার ভোটদানের হার। কিন্তু যে পদ্ধতিতে এই হার নির্ণয় করা হয় তা অত্যন্ত জটিল ও সময় সাপেক্ষ। যার ফলে ভুলভ্রান্তির সম্ভাবনাও থাকে প্রবল। প্রতিবারই এনিয়ে সমস্যায় পরে কমিশন। ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে প্রথম দফাতেও একাধিক জায়গায় প্রতি দু’ঘণ্টার হার জোগাড় করতে হিমশিম খেয়েছেন ভোটকর্তারা। সেকারণে এবার ভোট গুনতে ‘ভোটার্স টার্ন আউট অ্যাপ’ চালু করল কমিশন। এবার এই অ্যাপের মাধ্যমেই প্রতিঘণ্টার ভোটের হার গণনা করা হবে। সমস্ত রাজ্যের সিইওদের ইতিমধ্যে চিঠি দিয়ে একথা জানিয়ে দিয়েছেন উপ-নির্বাচন কমিশনার সন্দীপ সাক্সেনা।

[আরও পড়ুন: হাই কোর্টের নির্দেশে ভারতে টিকটক অ্যাপ নিষিদ্ধ করল গুগল]

প্রতিঘণ্টার ভোটদানের হার যাচাই করার দায়িত্ব থাকে সাধারণত রিটার্নিং অফিসার (আরও) এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট রিটার্নিং অফিসারদের (এআরও)। প্রতিটি বুথ থেকে প্রতিঘণ্টার ভোটদানের হার হাতে কলমে যোগ করে তা সিইও-র কাছে পাঠিয়ে থাকেন। এবার এই কাজই করতে হবে অ্যাপের মাধ্যমে। কীভাবে কাজ করবে এই অ্যাপ? প্রতি দু’ঘণ্টার ভোটের হার নির্ধারণের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিকই শুধুমাত্র এই অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন। কমিশনের ‘সুবিধা পোর্টালের’ মাধ্যমে এটি কাজ করবে। ‘সুবিধা পোর্টাল’-এ ARO এবং RO হিসাবে লগ ইন করার পর অ্যাপে নির্ধারিত জায়গায় প্রতি দু’ঘণ্টায় প্রথমে সম্ভাব্য ভোটের হার নথিভুক্ত করতে হবে। ভোট শেষ হওয়ার পর প্রতি দু’ঘণ্টার ভোটদানের প্রকৃত হার নথিভুক্ত করে তা সিইও-র কাছে পাঠিয়ে দিতে হবে।

অ্যাপের মাধ্যমেই গোটা লোকসভার ভোটদানের হার নির্ধারণ করা হবে। ভোটদানের সময় সকাল সাত’টা থেকে সন্ধ্যা ছ’টা। চলতি নিয়মে ভোটদানের সময় পেরিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কেটে গেলেও ঠিক কত শতাংশ মানুষ ভোট দিয়েছেন তা জানা সম্ভব নয়। কারণ, ভোটের সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও অনেক মানুষ লাইনে থাকেন। সন্ধ্যা ছ’টার মধ্যে যাঁরা লাইনে দাঁড়িয়েছেন তাঁদের ভোটগ্রহণ করতে বাধ্য প্রিসাইডিং অফিসার। এরাজ্য়েই গভীর রাতে ভোট শেষ হওয়ার নজির রয়েছে। কমিশনের দাবি, এই অ্যাপ ব্যবহারের ফলে ভোট শেষ হওয়ার পর দ্রুত জানা যাবে একটি কেন্দ্রের সামগ্রিক ভোটদানের হার।

[আরও পড়ুন: ভোটের মরশুমে বিপদের ফাঁদ পাতা ফেসবুকে! সাবধান হোন]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং