BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

করোনা সংক্রমণ রুখতে এখন রেলকর্মীদের ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ আরোগ্য সেতু অ্যাপ

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: April 10, 2020 3:42 pm|    Updated: April 10, 2020 3:42 pm

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: রেলকর্মীদের হাতে এখন ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ হয়ে উঠেছে কেন্দ্র সরকারের ‘আরোগ্য সেতু’ অ্যাপ। যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে রেলের অসংখ্য কর্মী এখন কাজ করছেন। খাদ্য, কয়লা, দুগ্ধজাত, পেট্রো পরিবহণ করছে রেল। সমগ্র প্রক্রিয়া চালু রাখতে চলছে মালগাড়ি, পার্সেল ট্রেন। চালক, গার্ড, ট্রাকম্যান, সিগন্যাল, এসএম, সাফাই কর্মীরা, আরপিএফ ফ্রণ্টলাইনে কাজ করছেন। করোনার মতো সংক্রমণ যাতে তাঁদের আক্রান্ত করতে না পারে, সে জন্য রেলকর্মীদের এই অ্যাপ মোবাইলে ডাউনলোড করতে নির্দেশ দিয়েছিল রেল। ইতিমধ্যে যা রেলকর্মীদের কাছে ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ হিসাবে পরিচিত হয়েছে।

হাওড়ার ডিআরএম ইশাক খান জানান, ওই ডিভিশনে ২১ হাজার কর্মী ও ১৩ হাজার পরিবার নিজেদের নাম আরোগ্য সেতু-তে নথিভুক্ত করেছেন। শিয়ালদহের এডিআরএম-আই ইউ কে পাণ্ডে জানান, ওই ডিভিশনের ১৮ হাজার কর্মী ও ১৭ হাজার পরিবার ওই আপে নাম রেজিস্ট্রি করিয়েছেন। কেন্দ্র সরকারের এই অ্যাপে নাম রেজিস্ট্রি করতে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। স্বাস্থ্য সম্পর্কিত ও বিদেশ যোগ সংক্রান্ত। দেখা হবে আপনি করোনা আক্রান্ত কি না, উপসর্গ আছে কি না ইত্যাদি। এরপর আপনার মোবাইলে পাবেন এর পরিষেবা। যে মোবাইলে ডাউনলোড করা হবে তার ব্লুটুথ ও লোকেশনের সঙ্গে যুক্ত হবে। এরপর করোনা প্রবণ এলাকায় গেলে লাল, সবুজ, হলুদ সংকেতে জানিয়ে দেবে আপনি কতটা প্রবণিত এলাকায় রয়েছেন, ফলে সতর্ক হওয়ার সুযোগ রয়েছে। করোনা আক্রান্ত কেউ পাশে এলে স্বয়ংক্রিয় ভাবে মোবাইল ভাইব্রেট করতে শুরু করবে। নিমেষে সতর্ক হতে পারবেন।

[আরও পড়ুন: করোনা ‘যুদ্ধে’ শামিল টুইটার CEO, ত্রাণ তহবিলে ১০০ কোটি মার্কিন ডলার দেবেন জ্যাক ডোরসে]

রেলে ফ্রণ্টলাইন কর্মীরা নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে উপযুক্ত সরঞ্জাম পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ তুলেছেন। নানা অভাব সত্বেও তাঁরা কাজ করে চলেছেন, ফলে এই App তাঁদের সুরক্ষায় খুব কার্যকরী বলে মনে করেছেন রেল কর্তারা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement