২৫ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টিকটক মানেই অঘটন। প্রতিবারই কিছু না কিছু খারাপ খবরের জন্য শিরোনামে উঠে আসে ভিডিও তৈরির এই অ্যাপটি। দিনকয়েক আগেই মহারাষ্ট্রের আহমেদনগরের এক বাসিন্দা টিকটক ভিডিও তৈরি করতে গিয়ে দুর্ঘটনাবশত গুলি খেয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছিলেন। এবার টিকটক প্রাণ নিল দুই সন্তানের মায়ের।

[আরও পড়ুন: এবার অ্যাপ ডাউনলোড করে ফেসবুককে সাহায্য করলেই পাবেন পুরস্কার!]

বছর চব্বিশের অনিতার প্রিয় অ্যাপ এই টিকটক। ইচ্ছে মতো ভিডিও তৈরি করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করতে দারুণ ভালবাসতেন তিনি। কিন্তু বিষয়টি না-পসন্দ ছিল স্বামীর। আর তাতেই বিপত্তি। কারণে-অকারণে স্ত্রীর টিকটক ভিডিও তৈরির বিষয়টি নিয়ে বেশ বিরক্ত হতেন স্বামী। এমনটা করতে অনেকবার তাঁকে নিষেধও করেছিলেন। কিন্তু অ্যাপের নেশায় বুঁদ অনিতা সেসব কানেই তোলেননি। ফলে মেজাজ হারিয়ে স্ত্রীকে রীতিমতো বকাঝকা করেন ব্যক্তি। স্বামীর চেঁচামেচি সহ্য করতে না পেরে আত্মহননের পথ বেছে নেন তিনি। বিষ পান করে সেই ভিডিও রেকর্ড করে স্বামীকে পাঠিয়ে দেন অনিতা। সেই সময় স্বামী ছিলেন সিঙ্গাপুরে। ভিডিওটি পেয়ে স্বাভাবিকভাবেই ঘাবড়ে যান ব্যক্তি।

এর আগে অপরাধমূলক কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগে টিকটক ভিডিও খ্যাত এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছিল মুম্বই পুলিশ। অভিযোগ, জুহুর এক দম্পতির চোখে ধুলো দিয়ে তাঁদের ফ্ল্যাট থেকে প্রায় পাঁচ লক্ষ টাকার জিনিসপত্র হাতিয়ে নিয়েছিল ওই ব্যক্তি। আবার টিকটক সেলিব্রিটি মোহিত মোরকে খুনের ঘটনাও চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল। এবার টিকটক প্রাণ নিল অনিতার। উল্লেখ্য, অশালীন ভিডিও ছড়িয়ে অপসংস্কৃতি প্রচারের অভিযোগে এদেশে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল টিকটককে। তবে সংস্থার তরফে জানানো হয়, পরবর্তীকালে আর এমন ঘটনা ঘটবে না। ভিডিওর বিষয়ে আরও বেশি সজাগ হবে সংস্থা। তারপর ফের স্বমহিমায় কামব্যাক করে এই ভিডিও অ্যাপ। কিন্তু ফিরে এসেও নিস্তার নেই। একের পর এক অঘটন ঘটেই চলেছে।

[আরও পড়ুনছ iphone X-এর স্পিকারে সমস্যা, ব্যবহারকারীকে লক্ষাধিক টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে অ্যাপল]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং