BREAKING NEWS

১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  রবিবার ২৯ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‌দেখে নিন ২০২০ সালের সহজ দশটি পাসওয়ার্ডের তালিকা, আপনি ব্যবহার করছেন না তো?‌

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: November 22, 2020 10:48 pm|    Updated: November 22, 2020 10:48 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ প্রায় শেষের পথে ২০২০। করোনা আবহে (Corona Pandemic) গোটা বছরটাই যেন ‘‌বিষে’‌ ভরা। বছরের বেশিরভাগটাই মানুষ ছিল গৃহবন্দি। সে কারণে সোশ্যাল মিডিয়াই হয়ে দাঁড়িয়েছিল যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। অনেকেই হয়তো প্রথমবার বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটে প্রোফাইল খুলেছেন। বিশেষ করে বয়স্করা। আর তাঁদেরই অনেকে সাইবার ক্রাইমের কথা ভুলে গিয়ে প্রোফাইলে ভীষণ সহজ পাসওয়ার্ডও দিয়ে ফেলেছেন। চলতি বছরে ব্যবহৃত সেরকমই ২০০টি সহজতম বা খারাপ পাসওয়ার্ডের তালিকা তৈরি করেছে বিখ্যাত পাসওয়ার্ড ম্যানেজার সংস্থা ‘‌নর্ডপাস’ (NordPass)‌। যেগুলো সহজেই ক্র্যাক করে ফেলতে পারে হ্যাকাররা।

সংস্থাটি মূলত ১২টি ক্যাটেগরিতে ওই ২০০টি পাসওয়ার্ডকে রেখেছেন। দেখা যাচ্ছে, চলতি বছরে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত পাসওয়ার্ডটি হল ‘123456’। এই সহজ পাসওয়ার্ডটি লক্ষ লক্ষ মানুষ ব্যবহার করেছেন। এটি ২৩ মিলিয়নেরও বেশি বার ব্যবহার করা হয়েছে। অথচ এই সহজতম পাসওয়ার্ডটি এক সেকেন্ডেরও কম সময়ে ক্র্যাক করা কোনও ব্যাপারই নয়। এরপরই রয়েছে ‘123456789’ পাসওয়ার্ডটি। তিন নম্বরে রয়েছে ‘picture1’ শব্দটি। এরপর বাকি সাতটি হল– password, 12345678, 111111, 123123, 12345, 1234567890, senha।

These are 10 worst passwords of the year 2020: Check if your password is on the list
নর্ডপাসের রিপোর্ট অনুযায়ী প্রথম দশটি সহজ পাসওয়ার্ডের তালিকা।

নর্ডপাসের মতে, সাধারণ মানুষ মনে রাখার সুবিধার জনই এই দুর্বল পাসওয়ার্ডটি ব্যবহার করেছেন। তাই নম্বরের কম্বিনেশন, কোনও সহজ শব্দ বা পরপর একই অক্ষরকে পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার না করার পরামর্শও দিয়েছে তাঁরা।

[আরও পড়ুন:‌ ছবি, অডিও, ভিডিওর মাধ্যমে বিদ্বেষ ছড়ালেই ব্যবস্থা নিচ্ছে ফেসবুক, ডিলিট হবে অ্যাকাউন্টও]

এখানেই শেষ নয়, একটি রিপোর্টে কঠিন পাসওয়ার্ড তৈরির উপায়ও বাতলে দিয়েছে সংস্থাটি। সেখানে বলা হয়েছে, পাসওয়ার্ডে কমপক্ষে ১২টি ক্যারেক্টার (Charecters) থাকা প্রয়োজন। এছাড়া বড় হাত কিংবা ছোট হাতের অক্ষর, নম্বর এবং চিহ্ন মিলিয়ে পাসওয়ার্ডটি তৈরি করা উচিত। এছাড়া প্রতি ৯০ দিনে তা পরিবর্তন করাও জরুরি। আর মনে রাখার জন্য প্রয়োজনে আলাদা কোনও ছোট ডায়েরি তা লিখে রাখার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন:‌ পাকিস্তানে বন্ধ হতে চলেছে গুগল, ফেসবুক, টুইটার! ইমরান খানকে কড়া হুঁশিয়ারি তিন সংস্থার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement