BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‌যোগ দেওয়ার তিন মাসের মধ্যে TikTok-এর সিইও পদ থেকে ইস্তফা দিলেন কেভিন মেয়ার

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 27, 2020 6:04 pm|    Updated: August 27, 2020 6:04 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ আরও বিপাকে চিনা সংস্থা বাইটডান্সের (ByteDance‌)‌ মালিকানাধীন সংস্থা টিকটক (‌TikTok)‌। ইস্তফা দিলেন সদ্য নিযুক্ত সংস্থার CEO কেভিন মেয়ার। মাত্র তিনমাস আগে ডিজনি ছেড়ে চিনা এই সংস্থায় যোগ দিয়েছিলেন কেভিন। কিন্তু এই কয়েক দিনের মধ্যেই নিজের পদ ছাড়লেন তিনি। গোটা বিশ্বেই বর্তমানে কার্যত চাপে সংস্থাটি। ইতিমধ্যেই ভারতের মতো বিশাল বাজার খুইয়েছে টিকটক। আশঙ্কা রয়েছে, আগামিদিনে আমেরিকাতেও ব্যবসা গোটাতে হতে পারে সংস্থাটিকে। আর তার মধ্যেই এল এই খবর।

[আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে দমদমে পরিবারের কাছে ফিরলেন রাস্তায় পড়ে থাকা অসুস্থ বৃদ্ধা]

বুধবারই একটি ভিডিও বার্তায় নিজের পদ থেকে ইস্তফা দেন সংস্থার চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার (Chief Executive Officer) কেভিন মেয়ার। সেখানে তিনি জানান, ‌‘‌‘‌সাম্প্রতিক সময়ে রাজনৈতিক স্তরে অনেক পরিবর্তন এসেছে। সংস্থায় ঠিক কী ধরনের কর্পোরেট কাঠামো প্রয়োজন এবং আমার পদের জন্য তা কী অর্থ বহন করে, সেই বিষয়গুলোতে আলোকপাত করেছি। এরকম একটি পরিস্থিতিতে, আমরা খুব শীঘ্রই হয়তো কোনও সিদ্ধান্তে পৌঁছব। তবে ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আমি আপনাদের জানাতে চাই, আমি প্রতিষ্ঠান ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে আমার এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে কোম্পানির কোনও সম্পর্ক নেই।’‌’ আপাতত কেভিনের জায়গায় আপাতত এই দায়িত্ব সামলাবেন সংস্থার জেনারেল ম্যানেজার ভানেসা পাপ্পাস। ‌

[আরও পড়ুন: রাজনৈতিক বিজ্ঞাপনে সবচেয়ে বেশি খরচ করেছে বিজেপি, বিতর্ক উসকে জানাল ফেসবুক]

টিকটকের চিফ এগজিকিউটিভ কেভিন মেয়ারের ইস্তফার পরেই সংস্থার তরফ থেকে বিবৃতি দিয়ে তা স্বীকারও করে নেওয়া হয়। এছাড়া সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ঝ্যাং ইমিং বাইটডান্সের কর্মীদের লেখা একটি চিঠিতে জানিয়েছেন যে, তারা সমস্যা সমাধানের সাধ্যমতো চেষ্টা করছেন। দ্রুত তা মিটিয়ে ফের ব্যবসা শুরু করা হবে। হালে নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের জেরে টিকটক বন্ধ হয়ে গিয়েছে ভারতে (‌India)‌। প্রায় একই পরিণতি হওয়ার পথে টিকটকের আমেরিকার (America) ব্যবসা। এই নিয়ে কর্মীদের মধ্যে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। সংস্থার ভব্যিষত নিয়ে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। সেই কারণেই চিঠি লিখলেন টিকটকের প্রতিষ্ঠাতা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement