২১ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

করোনা যুদ্ধে শামিল Walmart-Flipkart, ভারতকে ৪৬ কোটি টাকা অনুদান দুই কর্পোরেট সংস্থার

Published by: Bishakha Pal |    Posted: April 18, 2020 7:49 pm|    Updated: April 18, 2020 7:49 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ভারত সরকারের পাশে দাঁড়াল বাণিজ্যিক সংস্থা Walmart Inc, Walmart Foundation এবং Flipkart। শনিবার এই তিন সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তারা স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মীদের পিপিই সরবরাহ করবে। এর মধ্যে থাকবে N95 মাস্কও। এছাড়া কৃষক এবং ছোট ব্যবসায়ীদের জন্য প্রয়োজনীয় ত্রাণের উপকরণ সরবরাহের জন্য তহবিলে অর্থ সাহায্য করবে বলেও জানিয়েছে তারা। করোনা যুদ্ধে ভারতকে ৪৬ কোটি টাকা সাহায্য করবে এই তিন সংস্থা।

একটি বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, Walmart Inc এবং ই-কমার্স সাইট ফ্লিপকার্ট সামনে থেকে এটি পরিচালনা করছে। এই দুই সংস্থাই ৩৮.৩ কোটি টাকা অনুদান দেবে। এই দুই বেসরকারী সংস্থা একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে স্বাস্থ্য কর্মীদের পিপিই ও N95 মুখোশ সরবরাহ করবে। এছাড়া প্রয়োজনীয় মেডিক্যাল গাউনও তারা সরবরাহ করবে বলেও বিবৃতিতে প্রকাশ। ওয়ালমার্ট এবং ফ্লিপকার্ট ইতিমধ্যেই ৩ লক্ষ N95 মাস্ক এবং ১ মিলিয়ন মেডিকেল গাউন সংরক্ষিত করেছে। স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য এই দুই সংস্থা তাদের বিশ্বব্যাপী সরবরাহ অব্যাহত রাখবে। এর পাশাপাশি ওয়ালমার্ট ফাউন্ডেশন সংস্থার তরফে গুনজ ও সৃজন-এই দুই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাকে মোট ৭.৭ কোটি টাকার অনুদান দিয়েছে। সংকটের মুহূর্তে এই দুই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সরবরাহ করছে।

[ আরও পড়ুন: পড়াশোনা চালু রাখতে উদ্যোগ, ইউটিউব চ্যানেলে ক্লাস শুরু পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের ]

এই তহবিলের অর্থ মূলত খাদ্য, ওষুধ, পরিষ্কার থাকার উপকরণ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের জন্য খরচ হবে। কৃষক ও ক্ষুদ্র ব্যবয়াসীরা এই সাহায্য পাবেন। ওয়ালমার্টের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং চিফ সাসটেইনেবিলিটি অফিসার, এবং ওয়ালমার্ট ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট ক্যাথলিন ম্যাকলফ্লিন জানিয়েছেন, ভারতে তাঁদের সহযোগী এবং গ্রাহকরা করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। এই সময় সবাইকে একসঙ্গে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। স্বাস্থ্যকর্মী, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ও সরকারী সংস্থাগুলি যেভাবে লড়াই করছে, তাদের পাশে থাকারও বার্তা দেন তিনি। ফ্লিপকার্ট গ্রুপের সিইও কল্যাণ কৃষ্ণমূর্তি জানিয়েছেন, ফ্লিপকার্টের কর্মীরা COVID-19 সংকটের মোকাবিলার জন্য ২৪ ঘণ্টা কাজ করছেন। তাঁরা আজ যে প্রতিশ্রুতির কথা ঘোষণা করেছেন, তা পূরণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

করোনা মোকাবিলায় ভারত সরকার ও ভারতীয়দের সাহায্য করতে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে কর্পোরেট ইন্ডিয়া। ইতিমধ্যেই টাটা ট্রাস্ট এবং টাটা গ্রুপ মিলে ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। অন্যদিকে উইপ্রো লিমিটেড, উইপ্রো এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড এবং আজিম প্রেমজি ফাউন্ডেশন একসঙ্গে ১ হাজার ১২২ কোটি টাকা দেবে বলে জানিয়েছে। অন্য আরও বেশ কয়েকটি সংস্থার স্যানিটাইজার, মাস্ক এবং খাবার সরবরাহ করে সহায়তার হাত বাড়িয়েছে।

[ আরও পড়ুন: লকডাউনে সঙ্গী ভোডাফোন-আইডিয়া, বিনামূল্যে মিলবে ইনকামিং কল পরিষেবা ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement