BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কাজে ফাঁকি! কর্মীদের উপর নজর রাখতে সফটওয়্যার আনল রাজ্য সরকার

Published by: Sulaya Singha |    Posted: June 16, 2020 10:13 pm|    Updated: June 16, 2020 10:13 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার কোপে কর্মক্ষেত্রে নিয়মিত হাজিরা দেওয়া যাচ্ছে না। সরকারি অফিসেও নির্দেশ, প্রয়োজন মতো বাড়ি বসেই কাজ করতে হবে। সংক্রমণ রুখতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। কিন্তু প্রশ্ন হল, ওয়ার্ক ফ্রম হোমে (Work From Home) কর্মীরা ঠিকমতো কাজ করছেন তো? কর্মক্ষেত্রের মতোই সময় মেনে বাড়িতেও কাজের মধ্যেই রয়েছেন তো? হাজার হাজার কর্মীর উপর নজর রাখা তো আর মুখের কথা নয়। তবে এই অসাধ্য সাধন করতেই নয়া সফটওয়্যার আনল নবান্ন।

আনলক ওয়ানের শুরুতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, ১০০ শতাংশ কর্মী নিয়েই এবার থেকে কাজ করতে পারবে সরকারি এবং বেসরকারি অফিসগুলি। তবে উপসর্গ থাকলে বাড়িতেই থাকার নির্দেশ ছিল কর্মীদের। কিন্তু বাড়তে থাকা করোনা (Coronavirus) সংক্রমণ, বাস-সহ অন্যান্য যানবাহনের অভাব ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে পরে সিদ্ধান্ত বদল করতে হয়। জানিয়ে দেওয়া হয়, অর্থদপ্তরের আধিকারিক ও কর্মীদের অফিসে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। বাড়ি থেকেই কাজ করবেন তাঁরা। পাশাপাশি বেসরকারি অফিসগুলিকেও কর্মীদের ওয়ার্ক ফ্রম হোমের অনুমতি দেওয়ার আরজি জানান মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু কর্মীদের সঙ্গে সবসময় যোগাযোগ রাখা কিংবা তাঁরা ঠিকমতো কাজ করছেন কি না দেখাটাও জরুরি। সেই কথা মাথায় রেখেই সোমবার এল নয়া সফটওয়্যার।

[আরও পড়ুন: কোন লক্ষণগুলি দেখে বুঝবেন অবসাদে ভুগছেন? মুক্তির উপায়ই বা কী? জানুন বিশেষজ্ঞদের মত]

এক সরকারি আধিকারিকের কথায়, আপাতত অর্থদপ্তরের জন্য পরীক্ষামূলকভাবে এটি ব্যবহার করা হচ্ছে। ফল ইতিবাচক হলে অন্যান্য বিভাগের ক্ষেত্রেও ব্যবহৃত হবে। বলছেন, “সরকারি কর্মীরা যদি ভাবেন, কেউ তাঁদের দেখতে পাচ্ছেন না বলে যা খুশি তাই করতে পারবেন, তাহলে ভুল ভাবছেন। এই সফটওয়্যারে লগ ইন করতে হবে। তাহলেই ডিউটি আওয়ার্সে তাঁদের পারফরম্যান্সের উপর নজর রাখা যাবে। বাড়িতে রয়েছেন বলে কাজের প্রতি অবহেলা চলবে না।”

বিশ্বের বহু অফিসের কর্মীরাই ওয়ার্ক ফ্রম হোক করছেন। পরস্পরের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে স্কাইপি-জুম অ্যাপের মতো বিভিন্ন ভিডিও কলিং অ্যাপ। হোয়াটসঅ্যাপকেও বিশেষভাবে কাজে লাগানো হচ্ছে। তবে কর্মীদের উপর নজর রাখতে রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগ বেশ চমকপ্রদ।

[আরও পড়ুন: ‘কমিউনিস্ট ম্যানিফেস্টো’ অর্ডার দিয়ে পেলেন ভগবত গীতা, আমাজনের কাণ্ডে অবাক কলকাতার ক্রেতা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement