৪ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আপনিও কি টিকটক ভক্ত? মজার মজার গান কিংবা সংলাপে অভিনয় করে সেসব ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করতে ভালবাসেন? তাহলে এ খবর শুনে আপনি দুঃখিত হতেই পারেন। কারণ এ দেশে বন্ধ হয়ে যেতে পারে টিকটক ভিডিও অ্যাপটি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন টিকটক-এর রমরমা। শুধু কি আমআদমি, এই ভিডিও অ্যাপে মজেছেন সেলেবরাও। কিন্তু এত জনপ্রিয়তা সত্ত্বেও অ্যাপটি ঘিরে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। কয়েকজন আইনজীবী এই অ্যাপের উপর নিষেধাজ্ঞা জারির আবেদনও করেছেন। তাঁদের দাবি, এসব ভিডিও সমাজে অপসংস্কৃতি ছড়াচ্ছে। অল্প বয়সের ছেলে-মেয়েরা টিকটকে আসক্ত হয়ে পড়ছেন। এবং সারাদিন মোবাইলের দিকে তাক করেই বসে রয়েছেন। আইনজীবীদের আবেদনে একমত হয়ে তামিলনাড়ুর তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী এম মণিকন্দন জানান, সে রাজ্যে টিকটক নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

[পছন্দের চ্যানেল বাছাইয়ে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সময়সীমা বাড়াল TRAI]

এর আগে অ্যাপটি বন্ধ করা নিয়ে সরব হয়েছিলেন তামিলনাড়ুর বিধায়ক থামিমুন আনসারি। তিনি বলেন, এই অ্যাপ কোনও ভাল কাজে তো লাগেই না। উলটে যুব প্রজন্মের ক্ষতিই করছে। টিকটক-এ এমন কিছু ভিডিও রয়েছে যা যৌন উদ্দীপনা তৈরি করছে। ফলে সমাজে ক্রমেই ছড়াচ্ছে অপসংস্কৃতি। তাঁর কথাতেই সুর মিলিয়ে তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে কেন্দ্রের সঙ্গেও কথা বলবেন তিনি। এ দেশ থেকেই যাতে টিকটক-কে মুছে ফেলা যায়, সেই ব্যবস্থাই নিতে চাইছে তামিলনাড়ু সরকার।

ঘটনা হল, শুধু বিনোদনের জন্যই যে মানুষ এই ভিডিও অ্যাপ ব্যবহার করছেন, এমন নয়। নানাভাবে এর অপব্যবহার করছে। এই অ্যাপের মাধ্যমে কোথাও শিশুদের নিয়ে অশ্লীল ভিডিও তৈরি হচ্ছে। এমনকী, ভিডিওতে মশকরা সহ্য করতে না পেরে গত বছর এক ব্যক্তি আত্মঘাতীও হয়েছিলেন। যদিও টিকটক-এর তরফে জানানো হয়েছিল, যাতে এর কোনও অপব্যবহার না হয়, তার জন্য সদা সচেষ্ট সংস্থা। যদি এমনটা হয়, সেক্ষেত্রে উপযুক্ত আইনি ব্যবস্থাও নেওয়া যেতে পারে। তবে দেখার, টিকটক নিজেদের পিঠ বাঁচিয়ে এ দেশে টিকতে পারে কিনা।

[জানেন, ইনস্টাগ্রামে একটি ছবিতে ঠিক কতগুলো হ্যাশট্যাগ দেওয়া উচিত?]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং