৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এভারেস্ট, অন্নপূর্ণা, সান্দাকফু, কাঞ্চনজঙ্ঘা – পাকদণ্ডি পেরিয়ে পৌঁছে গিয়েছেন তো পাহাড়চূড়ায়? দুর্গম পর্বতের টানে কতবারই তো ঝুঁকি নিয়েছেন। এবার আপনার অ্যাডভেঞ্চারের জন্য খুলে যাচ্ছে নতুন এক দরজা। নাম শুনলে আপনার অ্যাড্রিনালিন ক্ষরণের পরিমাণ সঙ্গে সঙ্গে বেড়ে যাবে। রোমাঞ্চিত হৃদয় ছুটে চলে যাবে সেইখানে।

siachen1
বলছি বিশ্বের উচ্চতম যুদ্ধক্ষেত্র সিয়াচেনের কথা। ভারত-পাকিস্তান-চিন ঘিরে থাকা সেই হিমবাহই হতে চলেছেন আপনার ট্রেকিংয়ের ডেস্টিনেশন। বিশ্বাস হচ্ছে না? ঘটনা কিন্তু সত্যি। দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং টুইটারে ঘোষণা করেছেন, পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে সিয়াচেনের পথ। সিয়াচেনের বেসক্যাম্প থেকে কুমার পোস্ট পর্যন্ত এবার থেকে যেতে পারবেন সাধারণ পর্যটকরা। এতদিন যা ছিল সেনাবাহিনীর জন্য সংরক্ষিত অঞ্চল। এবার এই রাস্তায় সেনাবাহিনীর পাশাপাশি বিশেষ অনুমতিপত্র নিয়ে যে কেউ যেতে পারবেন। তাঁদের সেই ছাড়পত্র দেওয়া হবে। সোমবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর এই ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমীদের মধ্যে উচ্ছ্বাস দেখা দিয়েছে। জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ – দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করে দেওয়ার পরই লাদাখের পর্যটনে জোর দিয়েছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এই সিদ্ধান্ত তারই একটা অংশ, টুইটারে তেমনই লিখেছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: পর্যটক হয়রানি রুখতে আসছে বিশেষ ‘রেটিং অ্যাপ’, এক ক্লিকেই জানুন হালহকিকত]

পৃথিবীর উচ্চতম ও শীতলতম যুদ্ধক্ষেত্র এই সিয়াচেন হিমবাহ অঞ্চল। একদিকে পাকিস্তান, আরেকদিকে চিন নিয়ে সিয়াচেনের অবস্থান ভারতের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এর আবহাওয়া এতটাই প্রতিকূল যে সেখানে জীবনযাপন কার্যত অসম্ভব। একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সিয়াচেনে সীমান্তের প্রহরীদের রাখা হত। কারগিল যুদ্ধের সময়ে সেনার অনুপস্থিতির সুযোগ নিয়েই ঢুকে পড়েছিল পাকিস্তান সেনা। পরের ঘটনা সকলেরই জানা। সাধারণ তাপমাত্রাই এখানে মাইনাস চল্লিশ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি। শীতল, রুক্ষ পাহাড়ি আবহাওয়ায় ৭২ঘণ্টা একটানা থাকা মানেই জীবনের খুব বড় একটা প্রতিকূলতা কাটিয়ে ওঠা। ভারতীয় সেনাবাহিনীকেও সিয়াচেনে এমন স্বল্প সময়ের জন্য অদলবদল করে রাখা হয়। তো তেমনই এক দুর্গমের চেয়েও দুর্গমতর স্থান আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের কথায়, ‘লাদাখে পর্যটনের বিপুল সম্ভাবনা আছে। এই পথ খুলে দিয়ে সেই সম্ভাবনাকেই আমরা দেখতে চাইছি।’

[আরও পড়ুন: বাঘমামার দর্শন পেতে চান? জঙ্গল সফরের সময় এগুলো মাথায় রাখুন]

কীভাবে যাবেন সিয়েচেনে? বেসক্যাম্প থেকে কুমার পোস্ট প্রায় ৪০০০ ফুট খাড়াই পথ। কুমার পোস্টের অবস্থান ১৫০০০ ফুটেরও উপরে। বেসক্যাম্প পরতাপুর থেকে যেতে হয় কুমার পোস্ট। এই পর্যন্ত আপনার যাত্রাপথ। প্রতি বছর সেনাবাহিনী বেসক্যাম্প থেকে কুমার পোস্ট পর্যন্ত অভিযানের আয়োজন করে থাকে। এবার থেকে তাঁদের সঙ্গে আপনিও শামিল হতে পারেন। তবে আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার জন্য কিন্তু খুব সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। মাইনাস ৪০ ডিগ্রিতে কী ধরনের খাবার সঙ্গে রাখতে পারেন, তার সম্যক ধারণা থাকা চাই।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং