২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

শুভদীপ রায়নন্দী: সবে পুজো কেটেছে। এবার নিশ্চয়ই মন বলছে একটু বেড়িয়ে আসি। কিন্তু ভাবছেন তো কোথায় যাবেন। আপনি কী পাহাড় ভালবাসেন? সঙ্গে পাহাড়বাসীর জীবনযাত্রাও বেশ আকর্ষণ করে? তবে সব ভাবনাচিন্তা ভুলে তল্পিতল্পা গুছিয়ে আজই বেড়িয়ে পড়ুন কালিম্পংয়ের পথে। সঙ্গে স্বাদ নিন স্ট্রিট ফেস্টিভ্যালের।

[আরও পড়ুন: পরিযায়ী পাখি টানতে সাজছে সাঁতরাগাছি ঝিল, তৈরি হচ্ছে আইল্যান্ড]

চতুর্দিকে পাহাড়ে ঘেরা ছোট্ট শহর কালিম্পং। যতদূর চোখ যায় শুধু পাহাড় আর পাহাড়। চড়াই-উতরাই পথ দিয়ে হাঁটলেই যেন মন হারিয়ে যায়। এই শান্ত পাহাড়ি পথে হাঁটতে হাঁটতে যদি কানে ভেসে আসে গিটারের সুর কিংবা দু’কলি গান, তবে মন্দ হয় না তাই না? মুহূর্তের মধ্যেই আপনার মনের অবস্থাকে বদলে দিতে পারে এই গান। আপনিও যদি এভাবেই কয়েকটা দিন কাটাতে চান, তবে আপনাকে কালিম্পংয়ে যেতেই হবে। কারণ, জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কালিম্পংয়ে শুরু হয়েছে স্ট্রিট ফেস্টিভ্যাল।

Street-Festival

কিন্তু ভাবছেন তো স্ট্রিট ফেস্টিভ্যাল আবার কী? পাহাড়ি রাস্তায় বসে কেউ মনের সুখে গিটার বাজিয়ে গান ধরেছেন তো কেউ কেউ আবার ওই গানের তালে কোমর দোলাচ্ছেন।

Street Festival

কোথাও বিক্রি হচ্ছে পাহাড়ের মনমাতানো সুগন্ধি চা। তো আবার কোথাও বিক্রি হচ্ছে অন্যান্য খাবারদাবার। রয়েছে পাহাড়ের বাসিন্দাদের হাতে তৈরি নানা জিনিস। সব মিলিয়ে ঠিক যেন উৎসবের মেজাজ কালিম্পংয়ে।

Street-Festival

জেলাশাসক ডঃ বিশ্বনাথ বলেন, “মেইন রোডের দম্বরচক থেকে থানাগাড়া পর্যন্ত এলাকাজুড়ে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। শনিবার থেকে শুরু হওয়া এই উৎসব চলবে টানা এক মাস।”

[আরও পড়ুন: এবার দিঘায় বেড়াতে গিয়ে এই মজা থেকে বঞ্চিত হবেন, কী জানেন?]

গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে বারবার আন্দোলনে অতীতে বহুবার প্রায় স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে  দার্জিলিং, কালিম্পং। তার জেরে পর্যটন ব্যবসা তলানিতে ঠেকেছে। অথচ এই পাহাড়ি এলাকাগুলির অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির একমাত্র পথ পর্যটন ব্যবসা। তাই পর্যটন ব্যবসাকে ঢেলে সাজানোর দিকে নজর দিয়েছে সংশ্লিষ্ট দপ্তর। প্রশাসন সূত্রে খবর, সেদিকে খেয়াল রেখেই স্ট্রিট ফেস্টিভ্যালের পরিকল্পনা নেওয়া হয়। প্রতিবছরই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের টানে পর্যটকরা কালিম্পংয়ে ভিড় জমান। এই স্ট্রিট ফেস্টিভ্যালের আকর্ষণে আরও বেশি মানুষ কালিম্পংয়ে আসবেন বলেই আশাবাদী পর্যটন দপ্তর।

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং