৭ মাঘ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২১ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পণ নিয়ে হবু শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে ঝামেলা। যার জেরে নির্ধারিত সময়ের অনেক পরে বিয়ে করতে এলেন বর। কিন্তু, বিবাহবাসরে পৌঁছে তিনি যা দেখলেন, তাতে চক্ষু ছানাবড়া হওয়ার জোগাড়। বর দেরি করে আসায়, পাশের বাড়ির এক যুবককে বরমালা পরিয়ে দিয়েছেন কনে। হাস্যকর হলেও এমনটাই ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বিজনৌরের ধামপুরে।

 

বিজনৌর পুলিশ সূ্ত্রের খবর, মাসখানেক আগেই একটি গণবিবাহ অনুষ্ঠানে চার হাত এক হয় ওই দম্পতির। তবে, বিয়ে হলেও তখন শ্বশুরবাড়ি যাননি কনে। ঠিক হয়েছিল, সামাজিক মতে ফের বিয়ে হবে। এবং তারপরই বরের হাত ধরে শ্বশুরবাড়ি যাবেন তিনি। সেইমতো, বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক হয়। কথা হয়, দুপুর দুটোর সময় বিয়ে করতে পৌঁছে যাবেন বর।

[আরও পড়ুন: ‘রাতটা বরবাদ হল’, চুরি করতে গিয়ে খালি হাতে ফেরা চোরের ক্ষোভ আছড়ে পড়ল চিঠিতে]

কিন্তু, বিয়ের দিন দেখা যায় দুপুর গড়িয়ে বিকেল হলেও বর আসছে না। আসলে, তাঁদের পণের দাবিদাওয়া পুরোপুরি না মেটায়, ঢিলেমি করছিল পাত্রপক্ষ। বরপক্ষ যা দাবি করছিল, তা পূরণ করা একপ্রকার অসম্ভব ছিল মেয়ের বাবার পক্ষে। শেষমেষ অবশ্য রাতের দিকে বিবাহবাসরে পৌঁছায় বর এবং বরযাত্রী। ততক্ষণে অবশ্য কপাল পুড়েছে তাঁর। বরের জন্য অপেক্ষা করতে করতে বিরক্ত হয়ে পাত্রী অন্য কাউকে বরমালা দিয়ে ফেলেছেন। পাত্রীপক্ষের দাবি, বিকেল পর্যন্ত বরের জন্য অপেক্ষা করেছিলেন তাঁরা। কিন্তু, ততক্ষণে বর না আসায়, ধরে নেওয়া হয় পাত্রপক্ষ আর আসবে না। তারপরই পাশের বাড়ির ছেলের সাথে বিয়ে দিয়ে দেওয়া হয় মেয়ের।

[আরও পড়ুন: চোরের টার্গেট মহার্ঘ্য পিঁয়াজ! খেত থেকে চুরি ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা ]

পাত্রপক্ষের আবার অভিযোগ, তাঁদের শুধু অপমান করা হয়েছে, তাই নয়। উলটে, বিয়ে করতে গেলে বর-সহ বরযাত্রীকে ঘরে আটকে রেখে, তাঁদের মারধর করা হয়। এমনকী, গয়নাকাটিও কেড়ে নেওয়া হয়। শেষপর্যন্ত তাঁরা পুলিশ ডাকতে বাধ্য হন। পুলিশ এসে দুই পক্ষের মধ্যে মিটমাট করিয়ে দেয়।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং