৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রেস্তরাঁর রান্নাঘরে রান্নাবান্না-বাসনপত্র ধোয়া বাদ দিয়ে আর কী কী হতে পারে? ধরে নেওয়া যাক রান্নাঘরের এক কোণে রেস্তরাঁ কর্মীরা রাতে ঘুমিয়েও নেন। কিন্তু তাই বলে রান্নাঘরে স্নান! কখনও শুনেছেন? বাসন ধোয়ার সিংককে রীতিমতো বাথটব বানিয়ে মনের আনন্দে সেখানে স্নান করছেন রেস্তরাঁ কর্মী! সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে এমনই একটি ভিডিও। যা নিয়ে তৈরি হয়েছে তুমুল বিতর্ক।

[আরও পড়ুন: বিয়ের পিঁড়িতে প্রেম! বরকে ফেলে পুরোহিতের সঙ্গে পালাল কনে]

ঘটনা আমেরিকার একটি ফাস্ট ফুড রেস্তরাঁ চেন ওয়েনডিস-এর। সেখানেই সাবানজল ভরতি একটি বড় সিংকের ভিতর উঠে বসে এক কর্মী। ফ্লোরিডার বাসিন্দা তিনি। তাঁর পরনে হাফ প্যান্ট। মনের সুখে সেখানে বসেই স্নান করছেন তিনি। আবার রান্নাঘরের টিস্যু ব্যবহার করে হাত-পাও ঘষে নিচ্ছেন। মাঝে মাঝে এদিক-সেদিক দেখে নিচ্ছেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের চোখে পড়ছে না তো? তাঁর সহকর্মীরাই হাসতে হাসতে মোবাইলে ভিডিওটি রেকর্ড করেছেন। আর সেটি ছড়িয়ে পড়তেই শুরু হয় বিতর্ক। কয়েকদিনের মধ্যেই প্রায় দশ লক্ষ মানুষ ভিডিওটি দেখে ফেলেন। ফেসবুকে এই ভিডিও দেখে ক্ষোভ ও বিরক্তি উগরে দিয়েছেন নেটিজেনরা। প্রশ্ন উঠেছে রেস্তরাঁর পরিচ্ছন্নতা নিয়ে। অনেকেই লিখেছেন, এত জনপ্রিয় একটি রেস্তরাঁর অন্দরে এমন অপরিচ্ছন্ন কাণ্ডকারখানা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। যে যে রান্নাঘর থেকে খাবার এনে মানুষের কাছে পরিবেশন করা হয়, সেখানে স্নান? তাহলে মানুষ আর কোন বিশ্বাসে সেই রেস্তরাঁয় খেতে যাবে? অনেকেই ওই কর্মীদের বরখাস্ত করার দাবিও তোলেন।

ঘটনার কথা জানাজানি হতেই ওই রেস্তরাঁ কর্মীকে কাজ থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। মিল্টনের ওয়েনডিস-এর মালিকের তরফে বুধবার একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়, এমন ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না। বিষয়টির বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। যে ব্যক্তি এমন ঘৃণ্য মজা করেছেন তিনি আর রেস্তরাঁয় কাজ করেন না। তবে নিজেদের বিশ্বাসযোগ্যতা ফিরে পেতে রেস্তরাঁটিকে যে বেশ পরিশ্রম করতে হবে, তা বলাই বাহুল্য।

[আরও পড়ুন: চাকরি ফেরাতে অফিসের ছাদে উঠে এ কী কাণ্ড করলেন তরুণী!]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং