৭ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ২৫ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিয়ের অনুষ্ঠান মানেই অন্য সাজে বর-বধূ। সেইসঙ্গে সেজে ওঠে বিয়ের আসরও। কিন্তু বিয়ে বাড়িতে নিমন্ত্রিতদের আকর্ষণ বাড়াতে পশুদের সাজানোর রেওয়াজ শুনেছেন কখনও? এমনই ঘটল স্পেনে। আর এ সাজ যে সে সাজ নয়, ভোলবদলে গাধা হল জেব্রা। কারণ বিয়ে বাড়ির থিম যে সাফারি পার্ক। তা বলে স্রেফ থিমের চাহিদায় একটি বিলুপ্তপ্রায় পশুর গায়ে এভাবে রং মাখানো হবে? প্রশ্ন নেটিজেনদের।

[আরও পড়ুন: গাছের ডালে ঘুরছে মানুষমুখো মাকড়সা! নেটদুনিয়ায় ভাইরাল ‘স্পাইডার ম্যান’]

সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, কাডিজের এক স্থানীয় শহর ইআই পালমারের এক বিয়ের রিসেপশনের বার সংলগ্ন এলাকায় এভাবেই সাজিয়ে গুছিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল দুটো গাধাকে। গায়ে তাদের সাদা-কালো ডোরা। দূর থেকে দেখে প্রথমে জেব্রা বলেই ভুল করেছেন অনেকেই। পরে বুঝতে পেরেই তীব্র প্রতিবাদ জানাতে থাকেন পশুপ্রেমীরা। মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে সেই ছবি। এরপরই আয়োজকদের রুচি, মানসিকতাকে ধিক্কার জানিয়েছেন নেটিজেনরা। মানুষের রংচং মেখে সং সাজার ঘটনা নতুন নয়। তা বলে, তার থেকে রেহাই পাবেন না পশুরাও? প্রশ্ন সকলের।

তাঁদের কথায়, “একে গাধা এখন বিলুপ্তির পথে। তার মধ্যে লোক টানতে বা বিয়েবাড়ির আকর্ষণ বাড়াতে যদি এভাবে গায়ে কেমিক্যাল রং করা হয় তাহলে পশুটির নির্বংশ হতে বেশি সময় লাগবে না।” ছবি দেখার পর সোশ্যালে এভাবেই ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন টমাস হেরেরা পেলিজ। তাঁর এই মন্তব্যে সায় দিয়েছেন বাকি নেটিজেনরাও। “পশু বলে মুখ বুঁজে এই অত্যাচার সহ্য করতে হবে!” প্রশ্ন আরেকজনের। কেউ কেউ বলেছেন, বিয়েবাড়ির আকর্ষণ বাড়াতে গাধাকে রং করে জেব্রা সাজানোর খুব দরকার ছিল? এই ঘটনা নজরে পড়েছে কৃষিও বিপণন দপ্তরেরও। দেখেছে স্পেনের প্রকৃতি-পশু সুরক্ষা দপ্তরও। প্রসঙ্গত, গত বছর ইজিপ্টের এক চিড়িয়াখানা নাকি দর্শক টানতে গাধাকে রং করে জেব্রা বলে চালিয়েছিল!

[আরও পড়ুন: নদীর কুমির পুকুরে! যথাস্থানে ফেরত পাঠাতে হিমশিম পাথরপ্রতিমার বনকর্মীরা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং