BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

মহারাষ্ট্রের উপকূলে দেখা মিলল বিরল দু’মুখো হাঙরের, হতবাক মৎস্যজীবীরা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: October 12, 2020 3:41 pm|    Updated: October 12, 2020 3:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কয়েকমাস আগেই ওড়িশার কেওনঝড় জেলার দেহনকিকোটে এলাকার একটি বাড়ি থেকে দুমুখো উলফ স্নেক উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ছিল। পৌরাণিক কাহিনীতে বর্ণিত ওই অদ্ভূতদর্শন প্রাণীকে দেখে চমকে উঠেছিল মানুষ। এবার মহারাষ্ট্রের পালঘর (Palghar) সমুদ্র উপকূলে দেখা মিলল বিরল দু’মুখো হাঙরের। যার ছবি ও ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হওয়া পরেই ওই এলাকার মৎস্যজীবীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষরাও হতবাক হয়ে পড়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অন্যদিনের মতো গত শুক্রবারও সমুদ্র মাছ ধরতে গিয়েছিলেন মহারাষ্ট্রের পালঘর জেলার সতপতি গ্রামের এক মৎস্যজীবী নীতীন পাটিল। মাছ ধরে বাড়ি ফেরার সময় তাঁর চোখে পড়ে জালে একটি অদ্ভূতদর্শন প্রাণী আটকে রয়েছে। হাত দিয়ে তুলে দেখেন সেটি ৬ ইঞ্চির ছোট্ট একটি দু’মুখো হাঙর (double-headed shark)। তাকে দেখে প্রথম নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারেননি নীতীন পাটিল। তবে একটু ধাতস্থ হতেই নিজের মোবাইল থেকে ওই বাচ্চা হাঙরটির কয়েকটি ছবি ও ভিডিও তুলে রাখেন তিনি। পরে হাঙরটিকে ফের জলে ছেড়ে দেন।

[আরও পড়ুন: হোক করোনা, তবু বিরিয়ানি চাই! দোকানের সামনে দেড় কিমি লম্বা লাইন ভোজনরসিকদের ]

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এত ছোট মাছ বিশেষ করে হাঙর আমরা খাই না। তাই মাছটি দেখে আমার অদ্ভূত লাগলেও জলে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিই। তার আগে অবশ্য কিছু ছবি তুলে নিয়েছি।’ নীতীন পাটিলের প্রতিবেশী অন্য এক মৎস্যজীবী জানান, তাঁরা এই ধরনের দু’মুখো বাচ্চা হাঙর কোনওদিন আগে চোখে দেখেননি। তাই প্রথমে সবাই অবাক হয়ে পড়েছিলেন। পরে হাঙরটির ছবি ও ভিডিও মুম্বইয়ের ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর এগ্রিকালচারাল রিসার্চ- সেন্ট্রাল মেরিন ফিশারিজ রিসার্চ ইনস্টিটিউট (ICAR-CMFRI) গবেষকদের দেখানো হয়েছে। তাঁরাও এই ঘটনা বিরল বলে জানিয়েছেন।

ছোট্ট ওই হাঙরটির ছবি দেখে সমুদ্র বিজ্ঞানীরা বলছেন, এমনিতেই প্রাণীজগতের মধ্যে দুমুখো হাঙরের দেখা পাওয়া যায় না। তার উপর ভারতীয় উপকূলে এই অদ্ভূতদর্শন প্রাণীর সন্ধান পাওয়া খুবই বিরল ঘটনা।

[আরও পড়ুন: নিজের অপহরণের গল্প ফেঁদে বাবার কাছে ১০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি! পুলিশের জালে নবম শ্রেণির ছাত্র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement