১২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

অনলাইন অর্ডারে মটর পনিরের বদলে এল চিকেন কারি, রেস্তরাঁকে মোটা অঙ্কের জরিমানা

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: July 17, 2022 1:46 pm|    Updated: July 17, 2022 2:46 pm

Gwalior Restaurant Fined rupees 20,000 For Delivering Chicken Curry Instead of Matar Paneer | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অনলাইনে খাবার ডেলিভারি (Online Food Delivery) নিয়ে হাজারও অভিযোগ আছে গ্রাহকদের। এক খাবার অর্ডার দেওয়া হয়েছে, অথচ অন্য খাবার এসে হাজির হল, এমনটা দেখা যায়। স্বভাবতই তাতে বিরক্ত হন গ্রাহক। অনেকে অভিযোগ জানান খাদ্য সরবরাহকারী সংস্থাকে। কিছু ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেয় সংস্থাগুলি, তবে অনেক ক্ষেত্রেই আমল দেওয়া হয় না অভিযোগে। কিন্তু গোয়ালিওরের (Gwalior) একটি পরিবারকে মটর পনিরের বদলে চিকেন কারি দিয়ে বিরাট বেকায়দায় পড়ল খাবার সরবরাহকারী সংস্থা ও একটি রেস্তরাঁ। গ্রাহকের অভিযোগের ভিত্তিতে রীতিমতো জরিমানা হল রেস্তরাঁর। ঠিক কী ঘটেছিল?

সম্প্রতি গোয়ালিওরের একটি পরিবার অনলাইনে মটর পনির অর্ডার করে। নির্দিষ্ট সময় খাবার পৌঁছে দেয় অনলাইনে খাবার সরবরাহকারী সংস্থা জোম্যাটো (Zomato)। কিন্তু খাবারের প্যাকেট খুলতেই চক্ষু চড়কগাছ হয় পরিবারটির। দেখা যায়, মটর পনির কোথায়, বরং তাদের দেওয়া হয়েছে চিকেন কারি। অনেকেই হয়তো ভাবছেন, নিরামিষ মটর পনিরের বদলে আমিষ মাংসের ঝোল পেয়ে খুশি হলেন না কেন পরিবারটি?

[আরও পড়ুন: উত্তরপ্রদেশে বাসের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষ, মৃত অন্তত ছয়, আহত ২১]

কারণ বিশুদ্ধ নিরামিষভোজী ওই পরিবার। এমন পরিবার, যাঁদের কাছে আমিষ খাওয়া তো দূর, বাড়িতেও আমিষ ঢোকে না। সেই বাড়িতে চিকেন কারি এলে যা হয়, বেজায় ক্ষিপ্ত হয় পরিবারটি। তার উপর খাবার অর্ডার দিয়েছিলেন পেশায় আইনজীবী সিদ্ধার্থ শ্রীবাস্তব। এমনকী যে রেস্তরাঁ থেকে খাবার এসেছিল, সেই জিয়াজি ক্লাবের সদস্য পদও রয়েছে তাঁর। এর পরেও এমন ঘটনায় বেজায় ক্ষিপ্ত হন তিনি। তৎক্ষণাৎ উপভোক্তা বিষয়ক দপ্তরে অভিযোগ জানান তিনি।

এরপরই গ্রাহকের অভিযোগের ভিত্তিতে গোয়ালিওরের জিয়াজি রেস্তরাঁকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। আইনজীবী সিদ্ধার্থ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, তাঁদের নিরামিষ বাড়িতে মাংস ঢোকায় সেদিন উপোস করেন পরিবারের সব সদস্য। তিনি অভিযোগ করেন, শুরুতে ওই রেস্তরাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি জানানো হলেও আমল দেয়নি তারা। এরপরেই উপভোক্ত বিষয়ক দপ্তরে অভিযোগ জানান। এবং গাফিলতির দোষে রেস্তরাঁকে জরিমানা করে সংশ্লিষ্ট দপ্তর।

[আরও পড়ুন: বাবরি ধ্বংস মামলায় আডবানী-জোশীদের বিরুদ্ধে নয়া মামলা, সোমবারই শুনানি]

এমন ঘটনা অবশ্য নতুন না। গত বছরের মার্চ মাসে গাজিয়াবাদের এক পরিবার অভিযোগ করেছিল, নিরামিষ পিজ্জার বদলে আমিষ পিজ্জা সরবরাহ করা হয়েছিল তাদের। ওই ঘটনায় উপভোক্তা বিষয়ক দপ্তরে অভিযোগ জানিয়ে ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের দাবি করা হয়। পরিবারটি জানায়, এই ঘটনায় তাদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত লেগেছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে