২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভালবাসার মৃত্যু হয় না, প্রয়াত স্ত্রীর স্মৃতিতে নয়া বাংলোয় মূর্তি বসালেন ব্যবসায়ী

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 11, 2020 1:17 pm|    Updated: August 11, 2020 1:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ দুর্ঘটনায় তিন বছর আগে মারা গিয়েছিলেন স্ত্রী মাধবী। কিন্তু কখনওই ভুলতে পারেননি তাঁকে। ভালবাসাও কমেনি এতটুকু। আর তাই তো নবনির্মিত বাড়িতে স্ত্রীর আস্ত একটি মূর্তি তৈরি করে ফেললেন শ্রীনিবাস মূর্তি নামে কর্ণাটকের (Karnataka) কোপ্পালের এক ব্যবসায়ী। গৃহপ্রবেশের দিন নিমন্ত্রিত অতিথিরা এসে দেখলেন মারা গেলেও বাড়ির কর্ত্রীর হাসিমুখে বসে থাকা একটি মূর্তি রয়েছে ঘরের মধ্যেই। ঠিক যেন জীবন্ত!‌

[আরও পড়ুন: কাশ্মীরে নাশকতার লক্ষ্যে অস্ত্র পাচার পাকিস্তানের, আগ্নেয়াস্ত্র-সহ সেনার জালে তিন দুষ্কৃতী]

জানা গিয়েছে, তিন বছর আগে দুর্ঘটনার দিন, মেয়েদের নিয়ে তিরুপতি (Tirupati) যাচ্ছিলেন মাধবীদেবী। তখনই কোলার হাইওয়েতে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে তাঁদের গাড়ি। মেয়েরা অল্পের জন্য বেঁচে গেলেও মারা যান মাধবী। এরপরই স্ত্রীর প্রতি ভালবাসায় তাঁর শেষ ইচ্ছাপূরণ করার জন্য চেষ্টা শুরু করেন। মাধবীর ইচ্ছা ছিল তাঁদের নিজস্ব একটি বাংলো হবে। এরপরই বাংলো তৈরির জন্য অনেকের সঙ্গে কথা বললেও কারোর ভাবনাই মনমতো হচ্ছিল না শ্রীনিবাসের। শেষ পর্যন্ত একজন তাঁকে বাংলোর ভিতরে স্ত্রীর মূর্তি তৈরির কথা বলেন। আর সেটাই মনে ধরে ওই ব্যবসায়ীর।এই প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, ”প্রত্যেকেই অবাক হয়ে গিয়েছিল। এক মুহূর্তের জন্য ওই মূর্তিটিকে সবাই সত্যি ভেবেছিল। আমার স্ত্রীর স্বপ্ন ছিল নিজস্ব একটি বাংলোর। কিন্তু থাকার জন্য সে-ই বেঁচে নেই। তবে এবার মনে হচ্ছে আমার স্ত্রী আমার সঙ্গেই রয়েছে।”

[আরও পড়ুন: ২০ হাজার টাকা দিতে পারেনি পরিবার, হাসপাতালের বাইরে অ্যাম্বুল্যান্সেই মৃত্যু করোনা রোগীর]

এরপরই গোম্বে মানে নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে স্ত্রী মাধবীর একটি সিলিকন মূর্তি তৈরি করান। পরবর্তীতে বাড়ির ড্রয়িংরুমে সেটি রাখার ব্যবস্থা করেন। এরপর গৃহপ্রবেশের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিতরা প্রত্যেকেই শ্রীনিবাসের এই কাণ্ড দেখে অবাক হন। তবে এর পাশাপাশি তাঁর কাজের প্রশংসাও করেন। ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে ওই অনুষ্ঠানের ছবি। নেটিজেনরাও স্ত্রীর প্রতি শ্রীনিবাসের এই ভালবাসা দেখে আপ্লুত।

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement