২ শ্রাবণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

২ শ্রাবণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যেন সদ্যই অগ্ন্যুৎপাত হয়েছে৷ লাভা জমাট বেঁধে পাথরের আকার নিয়েছে৷ সেই পাথর নিয়েই তোলপাড় পড়ে গেল ত্রিপুরার মধুবন এলাকার কাঁঠালতলি গ্রামে৷ গবেষকরা ইতিমধ্যেই লাভার পাথরের অংশ সংগ্রহ করে পরীক্ষা শুরু করেছেন বিজ্ঞানীরা৷

মধুবন এলাকার কাঁঠালতলিতে একটি ইলেকট্রিক পোস্টের সামনে থেকে শুক্রবার সকালে এমন কিছু পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা, যা দেখে তাঁদের সন্দেহ হয়৷ কাছে গিয়ে দেখা যায়, জমাট বাঁধা লাভার আকারে কিছু পড়ে আছে৷ সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় ত্রিপুরার স্পেস অ্যাপ্লিকেশন সেন্টার বা টিএসএসি-তে৷ তাঁরা সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করেন৷ জানা যাচ্ছে, গত বছর এধরনের সন্দেহজনক সামগ্রী ত্রিপুরার মাটিতে পাওয়া গিয়েছে অন্তত ৪বার৷ এর আগে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম সংলগ্ন সাবরুমেও এমনই হয়েছিল৷

[আরও পড়ুন: ‘গান্ধীজিকে অপমান করেছে, ক্ষমা করব না’, প্রজ্ঞার নিন্দায় সরব প্রধানমন্ত্রী]

টিএসএসি-র অন্যতম গবেষক, অভিষেক চৌধুরি জানিয়েছেন, ভূ-রাসায়নিক পরীক্ষা করা হয়েছে৷ তার রিপোর্ট না পেলে, ওই পদার্থটি নিয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাবে না৷ তবে কোথা থেকে ওই এলাকায় এমন লাভা জাতীয় পদার্থ এল, তা নিয়ে কিছুটা ব্যাখ্যা দিলেন অভিষেক চৌধুরি৷ প্লেট টেকটনিক থিওরির ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যায়, বাংলাদেশ-ত্রিপুরার এই অংশটিতে চ্যুতি হয়েছিল৷ ফলে অগ্নুৎপাতপ্রবণ এলাকা হয়ে রয়েছে সেটি৷ এবং এলাকাটি বেশ ভূমিকম্পপ্রবণ হয়ে পড়ে৷ শুধু ত্রিপুরার এই অংশই নয়,আসাম,মেঘালয়, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড – অর্থাৎ উত্তরপূর্বের রাজ্যগুলিতে সামগ্রিকভাবে কম্পনের সম্ভাবনা৷ ভূবিজ্ঞানীরা আরও জানাচ্ছেন, বিশ্বের ষষ্ঠ ভূমিকম্পপ্রবণ এলাকা হল ভারতের উত্তর-পূর্বাংশ৷ সিসমিক জোন – ফাইভের মধ্যে পড়ে৷

[আরও পড়ুন: মোদির থেকে অমিতাভ বচ্চনকে প্রধানমন্ত্রী করা ভাল, মন্তব্য প্রিয়াঙ্কার]

তাহলে কি কাঁঠালতলিতে পাওয়া ওই পদার্থটি ভূগর্ভস্থ লাভারই অংশ? এবিষয়ে নিশ্চিতভাবে কিছু না বললেও, সেই সম্ভাবনার কথা উড়িয়েও দিচ্ছেন না বিজ্ঞানীরা৷ তবে সাতসকালে রাস্তার মাঝে এমন এক সন্দেজনক জিনিস দেখে বেশ আতঙ্কিত হয়ে পড়েন গ্রামবাসীরা৷  

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং