২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাস, ট্রাম, ট্রেন, অটো – গন্তব্যে যাওয়া-আসার পথে এসব কিছুতেই আর চড়তে চাইছে না শহরাঞ্চলের আমজনতা৷ অস্ট্রেলিয়ার এক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্প্রতিকতম সমীক্ষায় উঠে এসেছে এমনই তথ্য৷ ভারত, চিন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, নেদারল্যান্ডস-সহ একাধিক দেশের উপর চলেছে সমীক্ষা৷ ‘জার্নাল অফ ট্রান্সপোর্ট জিওগ্রাফি’ নামের পত্রিকায় ভারত, চিনের মতো এশীয় দেশগুলির মানুষজন গণ পরিবহণ বা পাবলিক ট্রান্সপোর্ট ব্যবহারের ক্ষেত্রে বেশ অলস৷ তাঁদের এই দৃষ্টিভঙ্গিকে রীতিমত নেতিবাচক নজরেই দেখছেন গবেষকরা৷ তাঁদের মতে, প্রাইভেট গাড়ি ব্যবহারের প্রবণতা পরিবেশ দূষণ বাড়াচ্ছে৷

[ আরও পড়ুন: নাগরিকত্ব নিয়ে অভিযোগ ভিত্তিহীন, রাহুলকে স্বস্তি দিল সুপ্রিম কোর্ট]

গবেষকদলের সদস্য পরিবেশবিজ্ঞানী ডোরিনা পূজানি বলছেন,‘ইউরোপের বিশেষ কয়েকটি অঞ্চল এবং চিনে ধনীর সংখ্যা বেশি৷ নিজেদের গাড়ি কেনার ক্ষমতা রয়েছে তাঁদের৷ তাই গণ পরিবহণের দিকে তাঁরা পারতপক্ষে ঘেঁসেন না৷ আর এটাই নেতিবাচক দিক৷ তবে এসবের চেয়ে আমাদের বেশি অবাক করছে সমীক্ষার আরেকটি ফলাফল৷ ভারতের অনেকেই এত ধনী নন৷ নিজেদের গাড়ি কেনার ক্ষমতাও নেই তাঁদের৷ তা সত্ত্বেও পাবলিক ট্রান্সপোর্টের প্রতি তাঁদের উদাসীনতা আছে৷’

[ আরও পড়ুন: গৌরী লঙ্কেশের খুনে অভিযুক্তদের বোমা তৈরি শিখিয়েছিল মালেগাঁও বিস্ফোরণে জড়িতরা]

বলা হচ্ছে, বেজিং, চেন্নাইয়ের মতো ব্যস্ততম শহরে গণ পরিবহণ ব্যবস্থা আরও মজবুত করা প্রয়োজন৷ প্রাইভেট গাড়ির লাগামছাড়া ব্যবহার বায়ুদূষণ বাড়ায় এবং তা মানুষের স্বাস্থ্যের উপরও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে৷ পূজানির কথায়, ‘গণপরিবহণের ব্যবহার নিয়ে আমাদের সতর্ক হতে হবে৷ বাস কিম্বা অটোয় সওয়ার হওয়ার অভ্যেস বাড়াতে হবে৷ কত সময় লাগছে, কত ভাড়া পড়ছে, এসব কিছু ভাবলে হবে না৷ পাশের মানুষজন কেমন জীবনযাপন করছে, সেদিকে নজর রাখুন৷ আমরা দেখেছি, কোনও কোনও দরিদ্র দেশেও মানুষ বাসে চড়তে চাইছে না৷’ এনিয়ে গবেষকদলের মতামত, বায়ুস্তরে গ্রিনহাউস গ্যাসের পরিমাণ বাড়ছে৷ তা রুখতে হলে অবিলম্বে প্রাইভেট কারের ব্যবহার কমিয়ে গণ পরিবহণকে বেছে নিতে হবে৷

[ আরও পড়ুন: সন্ত্রাসবাদে মদত দিলে জল পাবে না পাকিস্তান, ফের হুঁশিয়ারি নীতীন গড়করির]

কিন্তু প্রশ্ন হল, কেন যথেষ্ট ধনী না হওয়া সত্বেও ভারতবাসীর একটা বড় অংশের বাসে, ট্রেনে চলাফেরা করতে এত আপত্তি? ভিড়ের চাপ নাকি অন্য কিছু? এরও উত্তরে বেশ চমক আছে৷ ডোরিনা পূজানি জানিয়েছেন, ইদানিং জীবনযাপন নিয়ে প্রতিযোগিতার ময়দানে পড়ে অনেকেই মুখ ফেরাচ্ছেন পাবলিক ট্রান্সপোর্ট থেকে৷ বাস, ট্রেন, অটোয় চলাফেরা করলে তাঁদের সামাজিক অবস্থান যে মধ্যবিত্ত পর্যায়ে পড়ে, তা প্রকাশিত হওয়ার আশঙ্কা করেন অনেকে৷ তাই গণপরিবহণের বদলে ভাড়ার প্রাইভেট কারই তাঁদের কাছে প্রাধান্য পাচ্ছে৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং