২৪ কার্তিক  ১৪২৬  সোমবার ১১ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: স্তন ক‌্যানসার কেড়ে নিয়েছিল প্রেমিকার প্রাণ। কিন্তু, মারণ রোগের কাছে হার মানেনি ভালবাসা। তাই প্রেমিকা ইয়াং লিউ-র মৃত্যুর পর তাঁর মৃতদেহের সঙ্গে সাতদিন কাটালেন প্রেমিক শু
শিনান। আর তারপর দুই পরিবারের সকলের সামনে বিয়ে করে ফেললেন লিউ-র শবদেহকেই। প্রেমিকার অন্ত্যেষ্টির দিনই তাঁকে বিয়ে করলেন বছর পঁয়ত্রিশের শু। উদাহরণ সৃষ্টিকারী এই ঘটনা ঘটেছে চিনের ডালিয়ান এলাকায়।

[আরও পড়ুন: OMG! পোকা মারতে বোমা ফাটালেন গৃহকর্তা, তারপর…]

ছোট থেকেই সহপাঠী ছিল শু এবং লিউ। ২০০৭ সালে তাঁরা একে অপরকে প্রেম নিবেদন করেন। স্বাভাবিকভাবেই পরবর্তী গন্তব‌্য ছিল বিবাহ। অনেক আলাপ-আলোচনার পর দু’জনে ঠিক করেন, ২০১৩ সালে বিয়ে করবেন।
কিন্তু, ওই বছর বিয়ের প্রস্তুতি চলাকালীন হঠাৎই লিউয়ের স্তন ক‌্যানসার ধরা পড়ে। শুরু হয় চিকিৎসা। চলতে থাকে কেমোথেরাপি এবং রেডিয়েশন। পরে লিউর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়। সুস্থ হতে শুরু করেন লিউ।

কিন্তু, ২০১৭ সালে ফিরে আসে ক‌্যানসার। এরপর আর এই দুরারোগ‌্য ব‌্যাধিকে প্রতিহত করতে পারেননি লিউ। চলতি বছরের ৬ অক্টোবর কোমায় চলে যান তিনি। এক সপ্তাহ পর মৃত্যু হয় তাঁর। কিন্তু, চিনের প্রাচীন প্রথা
মেনে, শু লিউয়ের শবদেহর সঙ্গ ছাড়তে অস্বীকার করেন। প্রেমিকার শবদেহের পাশে সাতদিন ছিলেন তিনি। প্রসঙ্গত, মৃত পরিজনদের উদ্দেশে‌ শ্রদ্ধা জানাতে তাঁদের শবদেহের সঙ্গে সাতদিন কাটানোর প্রথা প্রচলিত রয়েছে চিনে।
সেটাই লিউয়ের ক্ষেত্রে পালন করেন শু। আর তারপর, দুই পরিবারের সদস‌্যদের সামনে বিয়ে করেন প্রেমিকার সেই শবদেহটিকেই।

[আরও পড়ুন: মুখ শুঁকবে ২৫ জন, মদের গন্ধ পেলে গুজরাটের এই গ্রামে বাতিল হবে বিয়ে]

এপ্রসঙ্গে সংবাদমাধ‌্যমকে বছর পঁয়ত্রিশের শু বলেন, ‘বিয়ে করতে চলেছিলাম আমরা। আর তা নিয়ে খুব আনন্দে ছিল লিউ। কিন্তু, ক‌্যানসার ওর সেই আশা পূরণ করতে দিল না। কিন্তু, আমাকে তো ওর শেষ ইচ্ছার মর্যাদা দিতে হবে। বিয়ের পোশাক পরিয়ে ওকে তাই বিয়ে করলাম।’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং