৫ মাঘ  ১৪২৬  রবিবার ১৯ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo ফিরে দেখা ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুকু কোথায়? সেই খোঁজ দিলেই মিলবে কড়কড়ে ১০ হাজার নগদ। এমন পোস্টারে ছয়লাপ বারাসত ও তৎসংলগ্ন এলাকা। কিন্তু কে এই পুকু? যার হদিশ পেতে এত কাণ্ড! কোনও রাজা-উজির তো নয়ই, এমনকী পুকু মানুষই নয়। বরং পুকু হল হাওড়ার এক স্কুল শিক্ষিকার প্রিয় পোষ্য বিড়াল। গত ২৬ নভেম্বর থেকে যার হদিশ মিলছে না।

বাড়ির ছাদ থেকে বাগানের কোন, পাশের বাড়ির কার্নিশ থেকে ময়লা ফেলার ডাস্টবিন। কোথাও খুঁজতে বাকি রাখেননি ইতিহাসের শিক্ষিকা সোমা গঙ্গোপাধ্যায়। কিন্তু পুকুর টিকির দেখাও মেলেনি। কিন্তু হাল ছাড়ার পাত্রী নন সোমাদেবীও। এবার রীতিমতো পোস্টার ছাপিয়ে, ছবি বিলি করে পুকুর খোঁজে নেমেছেন সোমাদেবী। তিনি বারাসতের মিত্রপাড়ার বাসিন্দা। স্টেশন ও পাড়ার বিভিন্ন এলাকায় সেই পোস্টার লাগিয়ে দিয়েছেন। যাতে লেখা রয়েছে, যে বা যারা পুকুর হদিশ দিতে পারবে, তাঁকে বা তাঁদের দশ হাজার টাকা পুরষ্কার দেবেন তিনি। এমনকী পুলিশ স্টেশনে চত্বরেও এই পোস্টার লাগানো হয়েছে বলে খবর।

[ আরও পড়ুন : বৃহস্পতিবার থেকেই বাড়ল মেট্রোর ভাড়া, প্রত্যেক স্টেশনে টাঙানো হল নয়া রেট চার্ট]

বারাসতের বাসিন্দা সোমা গঙ্গোপাধ্যায় গত দেড় বছরের ধরে নিজের সন্তানের মতো করে পুকুর লালন-পালন করেছেন। কিন্তু গত ন’দিন ধরে তার হদিশ মিলছে না। এরপর থেকেই নাওয়া-খাওয়া ছেড়েছেন সোমাদেবী। তাঁর কথায়, “পুকু আমার সন্তানসম। ওর ভালমন্দ দেখার দায়িত্ব আমার। কিন্তু ও যে কোথায় গেল!” তিনি জানান, রোজই বাড়ি থেকে খাওয়া-দাওয়া করে প্রতিবেশীদের বাড়িতে ঘুরতে যায়। ২৬ তারিখও তেমন বেরিয়েছিল সে। তারপর আর ফিরে আসেনি। সোমবাদেবী জানান, “সামনেই মেয়ের পরীক্ষা। ওর পাশে থাকব বলে স্কুল থেকে ছুটি নিয়েছিলাম। কিন্তু পুকু চলে যাওয়ার পর থেকেই আমি মেয়ের দিকে মন দিতে পারছি না। বেশিরভাগ সময়ইটাই পুকুকে খুঁজতে চলে যাচ্ছে।”

[ আরও পড়ুন : রাজ্য সরকারের সুফল বাংলা স্টল থেকে ২০ কেজি পিঁয়াজ লুট, খালি হাতে বাড়ির পথে ক্রেতারা]

প্রসঙ্গত, মাস কয়েক আগে মেদিনীপুরেও পোষ্য বিড়ালের খোঁজ পেতে ফেসবুকে পুরস্কারের ঘোষণা করেছিলেন এক প্রশাসনিক কর্তার মেয়েও।   

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং