BREAKING NEWS

২৩ চৈত্র  ১৪২৬  সোমবার ৬ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

শিবলিঙ্গে দুধ না ঢেলে দুঃস্থ শিশুদের দুধ-পাউরুটি-বিস্কুট বিলি, অভিনব কর্মসূচি আসানসোলে

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: February 21, 2020 12:07 pm|    Updated: February 21, 2020 12:07 pm

An Images

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: শিবরাত্রি উপলক্ষ্যে ‘শিবজ্ঞানে জীবসেবা’ করতে চলেছে আসানসোল ব্রাদারহুড। একদিকে যখন ভক্তরা শিবের মাথায় দুধ ঢালবেন অন্যদিকে একদল যুবক-যুবতী মন্দির চত্বরে দুধ-পাউরুটি-বিস্কুট খাওয়াবেন দুঃস্থ শিশুদের। সংস্থার সদস্যদের মতে, দুধের অভাবে অপুষ্টিতে ভুগছেন শহরের দুঃস্থ ও পথশিশুরা। ক্যালসিয়ামের অভাব দেখা দিচ্ছে ওইসব শিশুদের শরীরে। তাই দুধ অপচয় না করে শিশুদের খাওয়ানোর বার্তা দিতেই কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। শিবরাত্রির মতো বিশেষ দিনে আসানসোল জিটি রোডের ধারে আশ্রমমোড়ে শনিমন্দির এলাকায় শুক্রবার দুধ, পাউরুটি, বিস্কুট, চকলেট বিলি হবে এদিন। শিশুদের দুধের প্যাকেট ও ব্রাউন পাউরুটি দেওয়া হবে শিবরাত্রিতে।

ফাল্গুন মাসে কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশীর রাত্রি ভক্তদের কাছে খুবই পবিত্র দিন। গোটা বছরে শিবরাত্রির সংখ্যা বারো হলেও ফাল্গুন মাসের এই তিথিটিই সবচেয়ে পবিত্র বলে ধরা হয়। রাত্রিবেলা চার প্রহরে শিবলিঙ্গকে দুধ, দই, ঘি, মধু ও গঙ্গাজল দিয়ে স্নান করানো হয়। তারপর বেলপাতা, নীলকন্ঠ ফুল, ধুতুরা, আকন্দ, অপরাজিতা ফুল দিয়ে পুজো করা হয়। এছাড়াও প্রতি সোমবার ভক্তরা শিবলিঙ্গের মাথায় জল ও দুধ ঢালেন ভক্তরা। ব্রাদারহুডের সদস্যদের দাবি, এমন ভক্তিতে মহাদেব খুশি হন কি না জানা নেই, তবে এতে দুধের অপচয় তো হয়ই।

[আরও পড়ুন: সংসারে শ্রীবৃদ্ধি চান? মহা শিবরাত্রিতে পুজোর পদ্ধতিতে এই ভুলগুলি করবেন না]

শিবরাত্রি উপলক্ষ্যে বছরে একবার করে শিবলিঙ্গে দুধ ঢালেন ভক্তরা। দুধের পরিমাণ জনপ্রতি ২৫০ গ্রাম। একটি পরিবারের জন্য গড়ে দুধের খরচ পড়ে ১ লিটার। ব্রাদারহুডের সম্পাদক পারমিতা মজুমদার বলেন, ‘রামকৃষ্ণদেব, স্বামী বিবেকানন্দরা জীবে প্রেমের মাধ্যমেই ঈশ্বর সেবার কথা বলে গিয়েছেন। শ্রীশ্রী রামকৃষ্ণদেব শিবজ্ঞানে জীবসেবার কথা বলে গিয়েছেন। সেই সেই পথকেই আমরা অনুসরণ করছি। তাই মন্দিরে দুধ না ঢেলে অপুষ্টির শিকার শিশুদের মুখে দুধ ও খাবার তুলে দেব।’ সভাপতি প্রশান্ত চক্রবর্তী বলেন, ‘আমাদের এই কর্মসূচি দেখে যাঁরা মন্দিরে যাবেন তাঁরাও দুধের অপচয়ের বাস্তবতা বুঝতে পারবেন।’ তিনি বলেন, ‘হিন্দু মহাপুরাণ তথা শিব মহাপুরাণ অনুসারে এইরাত্রেই শিব সৃষ্টি, স্থিতি ও প্রলয়ের মহাতাণ্ডব নৃত্য করেছিলেন। আবার এইরাত্রেই শিব ও পার্বতীর বিবাহ হয়েছিল। এরকম একটা দিনে দুঃস্থ অপুষ্টির শিকার শিশুরাও ভাল খাবার খেতে পাক এটা মনে হয় ঈশ্বরও চাইবেন।’

ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শিবরাত্রি উপলক্ষ্যে এই নতুন বার্তা তুলে ধরা হচ্ছে। মন্দিরে মন্দিরে এই কর্মসূচি পালন হোক এই আহ্বান জানাচ্ছে আসানসোল ব্রাদারহুড।

Advertisement

Advertisement

Advertisement